Home / ফিটনেস / সুন্দর আকর্ষণীয় জিরো ফিগার পেতে যা যা করতে হবে জেনে নিন!

সুন্দর আকর্ষণীয় জিরো ফিগার পেতে যা যা করতে হবে জেনে নিন!

বর্তমান সময়ে জিরো ফিগার কথাটার সাথে আমরা সুপরিচিত। জিরো ফিগার বা যাই হোক স্বাস্থ্যকর একটি স্লিম শরীর আমাদের সবারই কাম্য হওয়া, তা না হলে অসুস্থ্ শরীর নিয়ে ভুগতে হতে পারে। আমাদের লাইফস্টাইল এবং খাবারের ধরণ পরিবর্তন করলেই কাংখিত স্লিম ফিগার অবশ্যই অর্জন করা সম্ভব।



জিরো ফিগার পেতে নিচের টিপসগুলো মেনে চলুন_
# প্রথমেই আপনার মনকে শক্ত করতে হবে। # ভাজাপোড়া, মিষ্টি ও কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার প্রায় বন্ধ করে দিতে হবে। # প্রতিদিন ভোরে ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন। # ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস পানি পান করুন। # ১৫ মিনিট পর এক কাপ চিনি ছাড়া চা পান করুন। সাথে এক-দুটি টোস্ট বা বিস্কুট খেতে পারেন। # চা পানের এক ঘন্টা পর সকালের নাশতা করুন। সকালের নাশতায় দু-তিনটি রুটি, একটি ডিম, সবজি ও সালাদ রাখুন। # দুপুরের ও সকালের খাবারের মাঝে ফল যেমন¬ আপেল, পেয়ারা, কমলা ইত্যাদি খেতে পারেন।



# শুধু দুপুরে একটু ভাত খাবেন। মধ্যাহ্নভোজে এক থেকে দেড় কাপ ভাত, এক কাপ ডাল, সবজি, এক টুকরো মাছ বা গোশতসহ ঝোল তরকারি ও সালাদ রাখুন। # রাতে আবার দু-তিনটি রুটি, সবজি, এক কাপ ডাল ও এক টুকরো মাছ বা গোশত খাবেন। সাথে এক কাপ দুধ রাখতে পারেন। # ওপরের খাদ্যাভ্যাসগুলো ছাড়া প্রতিদিন অবশ্যই আধঘন্টা থেকে এক ঘন্টা হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুলুন। এভাবে যদি প্রতিদিন ওপরের অভ্যাসগুলো মেনে চলতে পারেন তবে স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে আপনি স্লিম হতে পারবেন।



# দিনে একবার লাঞ্চ কিংবা ডিনার করুন সালাদ দিয়ে। পছন্দের ফল ও সবজির সাথে টক দই মিশিয়ে স্বাস্থ্যকর সালাদ বানিয়ে নিন। এটা আপনার শরীরের বাড়তি মেদ কমিয়ে আপনাকে রাখবে ঝরঝরে ও সুন্দর। # লিফট ব্যবহার না করে সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করুন। দিনে অন্তত কয়েকবার সিঁড়ি ভাঙুন। এটি হিপস ও কোমরের শেপ সুন্দর করতে খুবই কার্যকর। সিঁড়ি ভাঙা না হলে গান ছেড়ে দিয়ে ইচ্ছামত নাচুন। দড়ি লাফ বা স্কিপিং খেলতে পারেন সুযোগ পেলেই। আপনার সম্পূর্ণ শরীরের মাসল টোন করার পাশপাশি এটি ওজন কমায় ও শরীরের সর্বত্রই কাজ করে ফিগারের শেপকে সুন্দর করে তোলে।



# যত যাই করুন না কেন, অবশ্যই পর্যাপ্ত ঘুমাবেন ও বিশ্রাম নেবেন। বিশ্রামের অভাবে আমাদের শরীরের নানান জায়গায় বিচ্ছিরি মেদ জমতে থাকে। তবে বিশ্রাম নেয়া মানে দিনরাত বসে থাকা নয়, সেটাও খেয়াল রাখবেন। সেই সাথে পান করবেন প্রচুর পানি। মেদ কমাতে ও ফিগারকে আকর্ষিণীয় করতে এর জুড়ি মেলা ভার। একই সাথে কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার কমিয়ে প্রোটিন বেশী খাওয়া শুরু করুন।

No comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *