Home / এক্সক্লুসিভ সংবাদ / কলেজছাত্রী প্রীতির সঙ্গে যা যা ঘটেছিল রাতে

কলেজছাত্রী প্রীতির সঙ্গে যা যা ঘটেছিল রাতে

বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে রাজধানীর শাহজাহানপুরে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়ে মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক টিপুকে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় সড়কে যানজটে আটকা পড়ে রিকশায় বসে থাকা কলেজছাত্রী সামিয়া আফরিন প্রীতিও (২২) গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড তা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে পুলিশ বলছে, পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। মোটরসাইকেল আরোহী খুনি আগে থেকেই টিপুর গাড়িকে অনুসরণ করে আসছিল।

ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার আবদুল আহাদ গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ব্যক্তিগত মাইক্রোবাসে (ঢাকা মেট্রো চ-২০-০৩৮০) বাসার দিকে যাচ্ছিলেন টিপু। খিলগাঁও রেলক্রসিংয়ের আগের সিগন্যালে আটকে ছিল তার গাড়ি। তখন মোটরসাইকেলে আসা হেলমেট পরিহিত এক ব্যক্তি তাকে লক্ষ্য করে অনবরত গুলি চালায়। এতে তিনি ও তার গাড়িচালক মুন্না গুলিবিদ্ধ হন। এ সময় পাশের রিকশায় থাকা এক তরুণীও গুলিবিদ্ধ হন। তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক টিপু ও ওই তরুণীকে মৃত ঘোষণা করেন।

জানা যাচ্ছে, মালিবাগের শান্তিবাগ এলাকার ২১৮ নম্বর বাসায় থাকতেন প্রীতি। বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) রাতে তিনি তার বান্ধবী সুমাইয়ার তিলপাপাড়া এলাকা থেকে বাসায় ফিরছিলেন। তারা দুইজন একই রিকশায় ছিলেন। হঠাৎ গুলির শব্দ হওয়ার পরেই কিছু বুঝে ওঠার আগেই প্রীতি গুলিবিদ্ধ হন।

একটি সিসি ক্যামেরার ভিডিওতে দেখা যায়, মাইক্রোবাসে চালকের পাশের সিটে বসা ছিলেন টিপু। গাড়িটি এজিবি কলোনি থেকে খিলগাঁও রেলগেইটের দিকে যাচ্ছিল। ইসলামী ব্যাংকের উত্তর শাহজাহানপুর শাখার সামনে মাস্ক পরা একজন কাছ থেকে গাড়িতে গুলি চালায়। এরপর আততায়ী সড়ক বিভাজক টপকে গুলি করতে করতে রাস্তার অন্য পাশে অপেক্ষমাণ মোটরসাইকেলে গিয়ে ওঠেন।

পুলিশের বিবৃতিতে স্পষ্ট যে, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা আর মৃত্যু নিয়ে খেলার মাঝে পড়ে মারা গেলো বেগম বদরুন্নেছা সরকারি মহিলা কলেজের অনার্সের ছাত্রী প্রীতি। যদিও এখানে মারা গেছে প্রতিপক্ষের টার্গেটে থাকা বৃহত্তর মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সেক্রেটারি জাহিদুল ইসলাম টিপু।

প্রীতির বাবার নাম জামাল উদ্দিন। গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কড়ইবাড়িতে। বর্তমানে রাজধানীর পশ্চিম শান্তিবাগে মা-বাবা ও ছোট ভাইয়ের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকতেন সামিয়া আফরিন প্রীতি।