Home / এক্সক্লুসিভ / ‘বিছানায় শুয়ে ভাবতাম যন্ত্রণা কখন শেষ হবে’ ঋতাভরী চক্রবর্তী

‘বিছানায় শুয়ে ভাবতাম যন্ত্রণা কখন শেষ হবে’ ঋতাভরী চক্রবর্তী

একদিকে অভিনয়, অন্যদিকে গান। এতসব নিয়ে ব্যস্ততার মাঝেও অবসাদ জাঁকিয়ে বসেছে অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তীকে। সম্প্রতি নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় অবসাদের কথাজানিয়েছেন এই অভিনেত্রী। ইনস্টাগ্রামে জিমের ড্রেস পরে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছেন ঋতাভরী।ছবির ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, একটা সময় ছিলযখন তিনি ডায়েট মেনে চলতেন এবং শরীরে মেদ জমেছে কি না তা দেখতে রোজ আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে একটি ছবি তুলতেন।

কিন্তু ৮ মাস আগে পর পর দুটি অস্ত্রোপচার হয় ঋতাভরীর শরীরে। তার পর থেকেই তার জীবনে কিছু পরিবর্তন এসেছে।অস্ত্রোপচার ঠিকভাবে হলেও অবসাদ চেপে বসতে থাকে ঋতাভরীর মনে। ঋতাভরী আরো লিখেন, ২০১৩ সাল থেকে আমি অনেক ডায়েট ও ওয়ার্কআউট মেনে চলেছি। মেদ জমেছে কি না দেখার জন্য রোজ আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতাম। শরীরেমাপ ৩৬-২৬-৩৬ আছে কিনা তা নিয়ে খুব সতর্ক থাকতাম।

কিন্তু ৮ মাস আগে আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি এবং দুটি সার্জারি হয়। এই সময়ে আমি নড়াচড়াও করতে পারতাম না। অধিকাংশ সময় কাটত বিছানাতেই। ভাবতাম কখন যন্ত্রণা শেষ হবে। তিনি আরো বলেন, সার্জারি ঠিক ভাবেই হয়। কিন্তু এর জেরে অবসাদ তৈরি হয়, যা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা এখনো আমি করে চলেছি।

আমি নিজেকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে, অবসাদ কাটিয়ে উঠতে সময় লাগতে পারে। কিন্তু আমার উচ্চাকাঙ্ক্ষী ও কর্মপ্রেমী সত্তার কোনো ধৈর্য্য নেই। আমি এ‌টা পোস্ট করলাম, কারণ তোমাদের বলতে চাইছি যে শারীরিক যন্ত্রণা নয়, মানসিক অবসাদ থেকে সেরে ওঠার চেষ্টা করছি।

এই অবসাদ আমায় সবকিছু থেকে চুপ করিয়ে দিয়েছিল। ঋতাভরী জানিয়েছেন, এখনো অবসাদ নিয়ে মুখোমুখি কথা বলার জায়গায় তিনি পৌঁছাননি। তবে খুব শিগগিরই বিস্তারিত নিয়ে কথা বলবেন। অনুরাগীদের আশ্বস্ত করে তিনি লিখছেন, আমি পর্দায় খুব বড় ভাবেই ফিরব। কিন্তু এখন শুধু সুস্থ হতে চাই নিজেকেই আর ভালো করে গড়ে তুলতে