Home / আজকের সংবাদ / ভিডিও ফাঁসের ভয় দেখিয়ে ৩ বছর ধরে জোরপূর্বক ছাত্রীকে ধর্ষণ!

ভিডিও ফাঁসের ভয় দেখিয়ে ৩ বছর ধরে জোরপূর্বক ছাত্রীকে ধর্ষণ!

তার ধর্ষণ-অত্যাচার থেকে বাঁচতে আমি ২০২০ সালের ১৩ আগস্ট পড়ালেখা ছেড়ে দিয়ে গাজীপুরের একটি গার্মেন্টস্ এ চাকরি করা শুরু করি। কিন্তু সেখানে গিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি। আমার মামাতো বোনের নিটক থেকে ঠিকানা নিয়ে ৯ সেপ্টেম্বর বিকালে গাজীপুরে এসে আমাকে ফোন দিয়ে এসএসসি পরীক্ষার প্রবেশপত্র, জন্ম তারিখ ও নাম-ঠিকানা সংশোধনের জন্য দেখা করতে বলে।

এমনকি ধর্ষণের ভিডিও ফোন থেকে ডিলিট করে দেয়ার প্রতিশ্রুতিও দেয়। আমি আবারো সরল বিশ্বাসের সাথে তার সঙ্গে দেখা করি। সে ঢাকা শিক্ষা অফিসে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে কক্সবাজারে নিয়ে যায়। বুঝতে পারার পর আমি তার সাথে প্রচণ্ড রাগারাগি করি।

এক পর্যায়ে সে বলে, আমার সাথে তিন দিন হোটেলে থাকলে পূর্বের ভিডিও ডিলিট করার পাশাপাশি কোনোদিন যৌনাচারে লিপ্ত হবে না বলে জানায়। একপর্যায়ে সে কক্সবাজারের একটি হোটেলে তিনদিন ধরে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

শেষের তিন তার হাত থেকে ফোন জোরপূর্বক নিয়ে প্রথম দিনের ধর্ষণের ভিডিও ডিলিট করে বাড়ি এসে আবারো পড়ালেখা শুরু করি। আনুমানিক ১৫ দিন অন্তর মাসুদ আবারো উত্যক্ত শুরু করে। ধর্ষণের কুপ্রস্তাব দিয়ে পূর্বের অন্য কোথায় সংরক্ষিত রেখে সেটি আমাকে দেখিয়ে নেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়

তিনি আরও বলেন, ২০২১ সালে আমি এসএসপি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করি। কিন্তু একটি বিষয়ে (ড্রেস মেকিং এন্ড টেইলারিং) বিষয়ে আমাকে ফেল করিয়ে দেয়। সর্বশেষ গত ৮ ফেব্রুয়ারি আমাকে ধর্ষণের ভিডিওসহ যত রকমের ডকুমেন্ট আছে সব মুছে ফেলার কথা বলে কৌশলে রাজশাহীর একটি হোটেলে নিয়ে এসে আবারো জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

কিন্তু ওইদিনও সেই ভিডিও ডিলিট করেনি। এভাবে দিনের পর দিন ধর্ষণের ভিডিও ফাঁসের ভয় দেখিয়ে নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিতে থাকে। তার অত্যাচার সইতে না পেরে তার মোবাইল নম্বর, ফেসবুক আইডি ব্লক দিয়ে যোগাযেগ বন্ধ করে দেই।