Home / অন্যান্য / বাপ চেপে ধরতো আর ছেলে ধর্ষণ করতো, সৌদি ফেরত এক নারী (দেখুন ভিডিওতে)

বাপ চেপে ধরতো আর ছেলে ধর্ষণ করতো, সৌদি ফেরত এক নারী (দেখুন ভিডিওতে)

বাসায় কাজ করার সময় বাবা-ছেলের হাতে নিয়মিত নির্যাতিত নারী বলেন, ‘ওই মালিক বলেন, তোকে কিনে এনেছি। তোর সঙ্গে যা ইচ্ছা তা-ই করব। এভাবে প্রতি রাতে আমার ওপর শারীরিক নির্যাতন করা হতো। নির্মম নির্যাতনের চিহ্ন আর তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে ফিরেছেন তারা। তাদের শরীরে অনেক আঘাতের চিহ্ন যা দেখা মাত্র শরীরের লোম দাঁড়িয়ে যাবে। কিভাবে একজন মানুষ অন্য মানুষের উপর পশুর মত আক্রমত করতে পারে।

মিলনের সময় এই কাজগুলি করুন বাড়তি আমেজ পাবে সঙ্গী! দেখুন ভিডিওতে

কিন্তু একদিন আমি পালিয়ে সউদী পুলিশের কাছে ধরা দেই।  আমার কাছে কোনো কাগজপত্র না থাকায় পুলিশ আমাকে জেলে পাঠায়।’ অপরজন বলেন, ‘রিক্রুটিং এজেন্সি আমাকে ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে সউদী আরবে পাঠায়। প্রথম এক বছর দেড় মাস একটি বাসায় কাজ করি। তারা নিজেদের বাসা ছাড়া আত্মীয়দের বাসায় নিয়েও কাজ করাতো। অথচ তিন বেলা ঠিকমতো খেতেই দিত না।

দেখুন ভিডিও –

এমনকি এত কাজ করার পরও বেতন পেতাম না। রিক্রুটিং এজেন্সিকে জানানোর পর তারা হোটেলে কাজ দেয়। সে হোটেল যেন দোজখখানা। প্রতি রাতে ৪ থেকে ৮ জন আমার উপর জুলুম-নির্যাতন করে। নতুন মালিক বলল, ‘বাংলাদেশি প্রায় চার লাখ টাকায় তার কাছে আমাকে বিক্রি করেছে।’

হাসপাতালে চিকিৎসার নামে এসব কি হচ্ছে? (দেখুন ভিডিওতে)

অবশ্য প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘নানা নির্যাতনের শিকার হয়ে সউদী আরব থেকে নারী শ্রমিকদের ফিরে আসা সম্পর্কে সরকার অবগত। এ বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর সর্বশেষ সফরেও দেশটির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *