Home / চুলের যত্ন / ত্বক ও চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে আদার অসাধারণ ৭টি কার্যকারিতা

ত্বক ও চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে আদার অসাধারণ ৭টি কার্যকারিতা

আদায় প্রায় ৪০ রকমের অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস রয়েছে, যা দেহ থেকে টক্সিন পদার্থকে দূর করতে এবং শরীরে রক্তের সঞ্চালন উদ্দীপিত করে এবং ত্বক টানটান ও কোমল করে। আদায় উপস্থিত ফ্যাটি এসিড, স্ক্যাল্প-এ রক্তের সঞ্চালনকে উদ্দীপিত করে, নতুন হেয়ার ফলিকল গজাতে উৎসাহিত করে এবং চুলের ভেঙে যাওয়া আটকায়। এছাড়াও আদা একটি শক্তিশালী টোনার যা ত্বকের দূষিত পদার্থগুলোকে পরিস্কার করে, ব্যাকটেরিয়া ঘটিত সংক্রমণকে বিনাশ করে এবং ত্বকে ঔজ্জ্বলতা আনে। তাহলে, আপনি আর কিসের জন্য অপেক্ষা করছেন? আজ আপনাদের জন্য রইল কিছু আশ্চর্যজনক অথচ সহজ আদার মাস্ক, যেগুলোর জন্য আপনি আমাদের ধন্যবাদ জানাবেন।



১. উজ্জ্বলতা বর্ধক মাস্ক
১ চা চামচ সদ্য নির্যাসিত আদার রস নিন, তাতে ২ টেবিল চামচ গোলাপজল ও ১ টেবিল চামচ মধু মেশান। সব উপকরণ ভালভাবে মিশে যাওয়া পর্যন্ত মেশাতে থাকুন। আপনার মুখ ও গলায় সমান ভাবে একটা কোট লাগান। ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলার আগে, আদার এই ভেষজ মাস্কটিকে ২০ মিনিটের জন্য থাকতে দিন।



২. ব্রণের জন্য মাস্ক
১ চা চামচ আদার গুড়োর সাথে, ১ চা চামচ মধু ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মেশান। যতক্ষণ না একটা মসৃণ পেস্ট পাচ্ছেন ততক্ষণ মিশ্রণটিকে মেশান। ব্রণ প্রভাবিত এলাকায় মিশ্রণটি লাগান। ৩০ মিনিট ঐভাবেই থাকতে দিন। একবার শুকিয়ে গেলে, ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ব্রণকে সম্পূর্ণভাবে সারিয়ে ফেলতে সপ্তাহে একবার এটি করুন।



৩. সেলুলাইট (cellulite) মাস্ক
১ কাপ আমন্ড ওয়েল, ২ টেবিল চামচ আদা বাটা ও ১ টেবিল চামচ দারুচিনির গুঁড়ো নিন। আপনার চাহিদা অনুযায়ী উপাদানগুলোর পরিমাণ ঠিকঠাক করে নিন। ভালভাবে মিশ্রণটি মিশে যাওয়া পর্যন্ত মেশাতে থাকুন। সেলুলাইট প্রভাবিত এলাকায় সার্কুলার মোশনে মাসাজ করুন। ২০ মিনিট এই অবস্থায় রাখুন ও পরে ধুয়ে ফেলুন।



৪. ক্ষতের দাগ হাল্কা করতে
একটি আদাকে ছিলে, কেটে ও ঘষে রস বের করে নিন। ঠান্ডা করতে কিছুক্ষণের জন্য রেফ্রিজারেটর-এ রেখে দিন। প্রভাবিত এলাকায় নির্যাসটি লাগান। ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে ফেলার আগে, ত্বককে নির্যাসটি শুষে নিতে দিন। ক্ষতের দাগ হাল্কা করতে দিনে কমপক্ষে দুইবার আদার এই নির্যাসটি লাগান এবং ৬ সপ্তাহ বা তারও কম সময়ের মধ্যেই আপনি তফাৎ দেখতে পাবেন।



৫. ডিটক্স স্নান
কিছু কিছু পেশিকে রিল্যাক্স করতে ও শরীরে রক্ত প্রবাহ উদ্দীপিত করতে, এই সুপার-থেরাপিউটিক ডিটক্স (Detox) স্নানটি ট্রাই করুন। হাল্কা গরম স্নানের পানির সাথে, হাফ কাপ ইপসম সল্ট ও দুই টেবিল চামচ আদা গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। আপনার প্রতিদিনের স্নানে যাওয়ার আগে, নিজেকে ঐ পানিতে ভিজিয়ে রাখুন যতক্ষণ না পেশিকে শিথিল হতে আপনি সচক্ষে দেখতে পারছেন।



৬. বডি স্ক্রাব
২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, সমপরিমাণ চিনি, ২ টেবিল চামচ আদা বাটা এবং কয়েক ফোঁটা লেমন অয়েল নিন। মেশাতে থাকুন যতক্ষণ না আপনি একটি দানাদার পেস্ট পাচ্ছেন। শরীরকে সামান্য ভিজিয়ে নিয়ে, সার্কুলার মোশন-এ ঐ মিশ্রণটিকে ম্যাসাজ করতে থাকুন। পায়ের থেকে শুরু করে গলা পর্যন্ত ম্যাসাজ করুন। ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নেওয়ার আগে, ১০-১৫ মিনিট ধরে এই ম্যাসাজ করুন।



৭. চুলের বৃদ্ধির জন্য
আধা কাপ জোজোবা তেলের সাথে ২ টেবিল চামচ আদার রস মেশান। ১-২ মিনিটের জন্য তেলটিকে গরম করে নিন। ত্বকে সহ্য করার মতো অবস্থা পর্যন্ত তেলটিকে ঠান্ডা করে নিন। এই হাল্কা গরম তেলটিকে আপনার স্ক্যাল্প-এ মাসাজ করুন। তেলকে ভালভাবে শুষে নিতে ও রক্ত সঞ্চালিত করতে, আপনার আঙুলের নরম ডগা দিয়ে সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করুন। সারারাত থাকতে দিন। সকালে হাল্কা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চুলের বৃদ্ধির জন্য, সপ্তাহে কমপক্ষে একবার আদা ব্যবহার করুন।



আদার ব্যবহার ত্বক ও চুলের যত্নে আসলেই যে কতটা কার্যকরী, দেখলেন তো? তাই বলছি, অনায়াসেই কিন্তু আদাটাকে আপনার প্রতিদিনকার যত্নের লিস্ট-এ রাখতে পারেন। যদি আপনার কাছে ত্বকের জন্য আদা ব্যবহার করার আরো কিছু টিপস থেকে থাকে, তবে তা নিচের মন্তব্য বিভাগে লিখে আমাদের সাথে শেয়ার করুন। সুস্থ থাকুন। ভালো থাকুন।

তথ্যসুত্রঃ দেহ.টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *