Home / দাম্পত্য জীবন / সঙ্গীকে সুখ দিতে শারীরিক মিলনের সময় যা ব্যাবহার করবেন!

সঙ্গীকে সুখ দিতে শারীরিক মিলনের সময় যা ব্যাবহার করবেন!

দুঃসাধ্য এই গরমে নাজেহাল সকলেই। বাড়ি থেকে যেকোনো কাজে বেরোতেই যেন ঘেমে নিয়ে একাকার কান্ড। সারাদিন কাজ করে বাড়ি ফেরার সময় সমস্ত এনার্জি প্রায় শেষ। এটা গ্রীষ্মের দিনের রোজকার ঘটনা। এমনকি প্রিয় মানুষটির সঙ্গে শারীরিক মিলনেও বাধা দেওয়া শুরু করে এই অস্বস্তিকর গরম। চিকিৎসকেরা বলেছেন, তাহলে শারীরিক মিলনের উপায় কি? কারণ গরমকাল থাকে দীর্ঘদিন ধরে। তবে চাপের কোনো কারণ নেই, কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখলেই শারীরিক মিলন হবে সুখের।



১. শারীরিক মিলনের জন্য রাখুন উইকেন্ড। পরের দিন কাজে বেরোনোর না থাকলে এমনিতেই মন থাকবে চাঙ্গা। ২. রাত্রে শোয়ার আগে স্নান করে নিন ভালোভাবে, ব্রাশ করুন দরকার হলে সঙ্গীকে নিয়েই স্নান করুন, এখন থেকেই শুরু করুন শারীরিক খেলা। ৩. রাত্রে বেশি রিচ খাবার ব্যাড দিয়ে হালকা খাবারের অভ্যেস গড়ে তুলুন। ৪. শোয়ার আগে ঠান্ডা শরবত জাতীয় বা গ্লুকোনডি পান করুন। ৫. এসি থাকলে কোনো ব্যাপারই নয়, তবে না থাকলে ফ্যানের স্পিড রাখুন সর্বোচ্চ।



শারীরিক মিলনের উপকারিতাঃ
১. যে নারীরা প্রায়ই শারীরিক মিলন করেন তাদের স্মৃতিশক্তি প্রখর হয়। আর্কাইভ অফ শারীরিক বিহেভিওর এর এক সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, নারীরা যতবেশি শারীরিক মিলন করেন ততই তারা কোনো শব্দ মুখস্থ করার ক্ষেত্রে ভালো পারফর্মেন্স করেন। গবেষকরা মনে করেন, দাম্পত্য নারীদের মস্তিষ্কের হিপ্পোক্যাম্পাস এর কোষ বৃদ্ধিতে উদ্দীপনা যোগায়। মস্তিষ্কের এই এলাকাটি স্মৃতি সংরক্ষণের কাজ করে।



২. দাম্পত্য রক্তচাপ ঠিক রাখার জন্য ভালো। ৫৭ থেকে ৮৫ বছর বয়সে দাম্পত্যয় সক্রিয় নারীরা উচ্চরক্তচাপে ভোগেন না। জার্নাল অফ হেলথ অ্যান্ড সোশাল বিহেভিওর এ প্রকাশিত এক গবেষণায় এমনটাই বলা হয়েছে। পাশাপাশি একটি ট্রোজান এবং দাম্পত্য ইনফরমেশন এবং এডুকেশন কাউন্সিল অফ কানাডার জরিপ মতে, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দাম্পত্য আরো রোমাঞ্চকর হয়ে ওঠে।



৩. দাম্পত্য আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পারে। অপ্রত্যাশিত বা অনাকাঙ্ক্ষিত দাম্পত্য কমবয়সী নারীদের জন্য ক্ষতিকর, গতানুগতিক এই ধারণাটি ঠিক নয়। বরং সোশাল সাইকোলজিক্যাল অ্যান্ড পার্সোনালিটি সায়েন্স এর একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব কলেজ শিক্ষার্থী এ ধরনের শারীরিক মিলন উপভোগ করেন তাদের আত্মবিশ্বাস বেশি। যদি তারা প্রায়ই তা উপভোগ করে, কিন্তু তারা যদি তা পছন্দ না করে তাহলে প্রায়ই দাম্পত্য উপভোগ করাটা উপকারী হবে না। এর মানে হলো আপনাকে আপনার আকাঙ্ক্ষাগুলোর ব্যাপারে সৎ হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *