[X]
Home / ত্বকের যত্ন / কোন জিনিসটি সপ্তাহে ১ বার ব্যবহার করলে যৌবন থাকবে আজীবন

কোন জিনিসটি সপ্তাহে ১ বার ব্যবহার করলে যৌবন থাকবে আজীবন

সৌন্দর্যের দিক থেকে জাপানিজ নারীরা সবসময়েই অনবদ্য। বিশেষ করে তাঁদের ঝলমলে চুল এবং নিখুঁত ত্বকের কারণে। এমন অনেক জাপানিজ চিত্রনায়িকা ও মডেলরা আছেন যাঁদের সত্যিকারের বয়স অনেক বেশি, কিন্তু দেখলে মনে হয় এখনও ফুরফুরে যৌবন ধরা রয়েছে! বিশ্বজুড়েই জাপানিজ নারীদের এই চির যৌবনের একটা রহস্যের বিষয় বৈকি।মজার ব্যাপার হচ্ছে, তাঁদের এই চির যৌবনের পেছনে যে উপাদানটি সবচেয়ে বেশি কাজ করে তা হল ‘ভাত’। কি, অবাক হচ্ছেন? হ্যাঁ, জাপানিজদের বয়স ধরে রাখে ভাতের তৈরি একটি ফেস প্যাক।

আসুন তাহলে জেনে নিই সেই জাদুকরী ফেসপ্যাকটির কথা,যে জিনিসটি সপ্তাহে ১বার ব্যবহার করলে থাকবে আজীবন যৌবন ধরে রাখার নিশ্চয়তা।

যৌবন ধরে রাখার উপকরণ: ৩ টেবিল চামচ ভাত, ১ টেবিল চামচ মধু, ১ টেবিল চামচ গরম দুধ।

প্রথমে চাল সিদ্ধ করুন। অর্থাৎ ভাত রান্না করুন। এবার চাল থেকে পানি আলাদা করে ফেলুন বা মাড় ফেলে দিন।
গরম ভাত চটকে নিন, নাহলে পরে শক্ত হয়ে যাবে। এর সাথে হালকা গরম বা উষ্ণ দুধ এবং মধু দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন।

প্রথমে মুখ ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। সম্ভব হলে কোন হালকা ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। মুখ শুকিয়ে গেলে ভাতের প্যাকটি মুখ ও ঘাড়ে ভাল করে লাগান। প্যাকটি শুকিয়ে গেলে ভাত সিদ্ধ পানি বা মাড় দিয়ে মুখ ও ঘাড় ধুয়ে ফেলুন। যৌবন দরে রাখতে সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন।

যৌবন ধরে রাখার এই প্যাকটি যেভাবে কাজ করেঃ
ভাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই যা ত্বককে ক্ষতিকর উপাদান থেকে রক্ষা করে থাকে ও তারুণ্য ধরে রাখে। তার সাথে সাথে সানবার্নও প্রতিরোধ করে। এছাড়া এতে লিনোলিক এসিড যা ত্বকের বলিরেখা দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। ভাতের মাড়ে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান আছে যা ত্বকের পানির পরিমাণ বজায় রাখার পাশপাশি রক্ত চলাচল ঠিক রাখে।

আরো পড়ুন, যে কারণে মহিলাদের বুদ্ধি বেশি হয়!

আমরা ছোট থেকেই শুনে আসছি পুরুষদের চেয়ে মহিলাদের বুদ্ধি বেশি হয়। এর প্রমাণও মিলিছে বারবার। স্কুলের পরীক্ষা থেকে শুরু করে যেকোনো প্রতিযোগিতায় নারীরা সবদিক থেকে যে এগিয়ে একথা সমর্থন করেন প্রায় বেশিরভাগ মানুষই। তবে অবশ্য গবেষণার ওপর ভিত্তি করেও এমন দাবি করছেন অনেকে। ৪৬,০৩৪টি মস্তিষ্কের ওপর করা একটি গবেষণা থেকে জানা গেছে, কিছু ক্ষেত্রে মহিলাদের মস্তিষ্ক পুরুষদের থেকে বেশি সক্রিয়।

এ ব্যাপারে আমেরিকার জার্নাল অব আলজাইমার ডিজিজে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে ডেনিয়েল জি আমেন এই বিষয়ে বক্তব্য রাখেন। সেখানে জানানো হয়েছে, আবেগ কিংবা মনোযোগ দেওয়ার কোনো বিষয়ে মহিলাদের মস্তিষ্ক পুরুষদের থেকে অনেক সক্রিয়।

বলা হয়েছে, একই ঘটনায় পুরুষ এবং মহিলার ওপর প্রভাবের মাত্রা ভিন্ন। বৃহৎ প্রিফ্রন্টল কর্টেক্স রক্ত প্রবাহের কারণে সহানুভূতি, অন্তর্জ্ঞান, আত্মনিয়ন্ত্রণ, সহযোগিতা এবং চিন্তাক্ষেত্রে বেশি সক্রিয়তা দেখা যায়। অন্যদিকে, এই রক্ত প্রবাহ বৃদ্ধি হলে, মহিলাদের চিন্তা-অবসাদ-অনিদ্রা-খাওয়াদাওয়ার মধ্যে ভারসাম্যের পরিবর্তন দেখা যায় বলেও জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *