[X]
Home / দাম্পত্য জীবন / স্বামী স্ত্রী’র সম্পর্ক চিরকাল টিকিয়ে রাখতে যা করবেন!

স্বামী স্ত্রী’র সম্পর্ক চিরকাল টিকিয়ে রাখতে যা করবেন!

আদর্শ সম্পর্ক বলতে অনেকে বোঝেন ঝগড়াঝাটি ছাড়াই সুখে শান্তিতে দিনের পর দিন কাটিয়ে দেওয়াকে। যারা এরকম ভাবেন তাদের বলে রাখি এরকম সম্পর্ক কিন্তু বেশীদিন টেকে না। অনেক যুগল আছেন যারা ঝগড়া এড়িয়ে চলতে চান। ঝগড়া এড়িয়ে চললেই হবে বিপদ। সম্পর্ক টিকে থাকলেও একে অপরের সঙ্গে কেউ কোনোদিন সুখী হতে পারবে না? তাই একটা সম্পর্ক টিকে থাকার জন্যে নিয়ম ঝগড়া হওয়াটা খুব দরকার। আসুন দেখে নেওয়া যাক যে পাঁচ কারণে সম্পর্কের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক অত্যন্ত জরুরি। তাই অন্তত একবার হলেও এ কারণেই ঝগড়া করুন।

কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গী স্পষ্টভাবে প্রকাশের জন্য আমরা সাধারণত তর্ক করি। এটার কারণে শুধুমাত্র নিজেদের মধ্যে চিন্তাভাবনা টিকিয়ে রাখি না, নিজেদের ভিন্ন মনোভাবও অপরের কাছে স্পষ্ট করি। এতে নিজেদের প্রতি ক্ষোভ থাকে না এবং একে অপরকে বুঝতে সুবিধা হয়। অধিকাংশ প্রেমিক যুগল একে অপরের কাছে ক্ষমা চায় এবং আরো বেশি ঘনিষ্ঠ হয়। যদি ঝগড়া যুক্তিসঙ্গত হয় তবে এতে ঘনিষ্ঠতা আরো বাড়ে।

আরো পড়ুন, প্রেমে পড়েও অনেকে জানান দিতে চান না শুধুমাত্র হারিয়ে ফেলার ভয়ে। হয়তো ভালো বন্ধু, কিন্তু প্রেমে পড়ার কথা জানলে যদি বন্ধুত্বটা না রাখে- এমন ভয় থেকেই আর মনের কথাটি বলা হয় না। এদিকে অপরপক্ষও হয়তো মনে মনে চায় কথাটি শুনতে।

কিন্তু দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ঝেড়ে কেউ আর সামনে এগোতে পারেনা বলে কত প্রেমই যে সুপ্ত রয়ে যায়! তবে কেউ আপনার প্রেমে পড়েছে কি না তা বোঝার রয়েছে কিছু উপায়। এই লক্ষণগুলো কারো সঙ্গে মিলে গেলেই বুঝে নিতে হবে সে আপনার প্রেমে পড়েছে!

যাকে আপনার প্রতি দুর্বল বলে মনে হয়, তিনি কি আপনার বিশেষ শখ বা পছন্দের হদিস জেনে সেই অনুযায়ী কিছু কিনে দিয়েছেন? বা হয়তো এমন কিছু জিনিস কিনেছেন, যা আপনার প্রয়োজনীয় হলেও আপনি আদৌ তা আগে বুঝতেই পারেননি, উপহার দেওয়ার সময় তিনিই বুঝিয়ে দিলেন তা। এমন হলে সেই দুর্বলতা কিন্তু সাধারণ নয়!

অফিসে হোক বা অন্য কোথাও, আপনার ভুল হয়েছে জেনেও সবার সামনে কি আপনার হয়ে লড়ে যান তিনি? নানা যুক্তিতে আপনার ভুল হালকা করার চেষ্টা করেন? পরে আপনাকে একা পেয়ে হয়তো বুঝিয়ে বলেন সেদিনের ভুল। এমন হলে সেই মানুষ কিন্তু আপনারই অপেক্ষায় রয়েছেন।

আপনার পোষ্যটিকে তিনিও খুব আদর করছেন, একই রকম ভালোবাসছেন- এমন হলে কিন্তু বুঝতে হবে যাকে নিজের প্রতি দুর্বল বলে ভাবেন, তিনি সত্যিই দুর্বল আপনার প্রতি। পোষ্যকে ভালোবাসা সাধারণত নিজের দুর্বলতা প্রকাশের একটা মাধ্যম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *