[X]
Home / মা ও শিশুর যত্ন / গর্ভপাত এড়াতে অবশ্যই এই ৫ খাবার এড়িয়ে চলবেন!

গর্ভপাত এড়াতে অবশ্যই এই ৫ খাবার এড়িয়ে চলবেন!

গর্ভে সন্তান ধারণ করা প্রতিটি নারীর স্বপ্ন। এ জন্য গর্ভকালীন সময়টা তাদের জন্য বেশ আনন্দের। পাশাপাশি সময়টা কিছুটা ঝুঁকিপূর্ণও। তাই নিজের এবং অনাগত সন্তানের জন্য সাবধান থাকতে হবে যেন কোনও ধরনের দুর্ঘটনা না ঘটে। বিশেষ করে গর্ভপাতের মতো দুর্ঘটনা এড়িয়ে চলতে বেশকিছু নিয়ম-কানুন মেনে চলতে হয়। এর মধ্যে খাদ্যতালিকা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এ পর্যায়ে জেনে নিন গর্ভপাত এড়াতে যেসব খাবার এড়িয়ে যাবেন-

১.পেপে: কাঁচা বা সবুজ পেপে গর্ভপাত ঘটাতে পারে। এতে ল্যাক্সাটিভ নামের একধরনের উপাদান থাকে যা আপনার মাতৃত্বের স্বাদ অকালেই নষ্ট করে দিতে পারে। এছাড়া পাকা পেপেতে থাকা বিচিও খুব বিপজ্জনক। তাই গর্ভকালীন সময়ে পেপে খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

২.আনারস: আনারসে ব্রোমেলেইন নামক এক ধরনের উপাদান থাকে যা গর্ভবতী নারীদের জন্য বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে। এটা গর্ভপাত ঘটায়। বিশেষ করে গর্ভধারণের প্রথম তিন মাস আনারস খাওয়া সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ। তাই প্রথম তিন মাস অবশ্যই আনারস এড়িয়ে চলুন এবং সম্ভব হলে গর্ভকালীন পুরো সময়টা আনারস না খাওয়াই ভালো।

৩.তিল: গর্ভধারণের শুরুতে তিল খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। বিশেষ করে শুরুর দিকে তিলের সাথে মধু খেলে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। তবে শেষের দিকে তিল খাওয়া যেতে পারে। কারণ, এটা প্রসবকালীন সময়ে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

৪.ধনিয়াপাতা: ধনিয়াপাতা অনেকের বেশ পছন্দ। কিন্তু গর্ভকালীন সময় এ খাবারটি এড়িয়ে চলুন। এমনকি ধনিয়াপাতার জুস গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়। এটি পেটে গ্যাস তৈরি করে পেট ফাঁপা ভাব সৃষ্টি করে।

৫.প্রক্রিয়াজাত মাংস: প্রক্রিয়াজাত মাংস খেলে আপনি সমস্যায় পড়বেন। এসব মাংসে এমন কিছু ব্যাকটেরিয়া থাকে যা আপনার পেটে থাকা সন্তানের ক্ষতি করবে। এমনকি এগুলোর কারণে গর্ভপাতও হতে পারে। তাই গর্ভাবস্থায় প্রক্রিয়াজাত মাংস এড়িয়ে চলুন।

কি বলছে গবেষণা?

গবেষণাটির সাথে জড়িত ডঃ নিস ব্রিক্স বলছেন, “বয়ঃসন্ধিকাল আগে বা পরে শুরু হয়েছে এমন রোগীদের সঙ্গে যখন চিকিৎসকেরা দেখা করেছেন তখন তারা তাদের পারিবারিক ও বংশগত ইতিহাস সংগ্রহ করেছেন। মায়ের বয়ঃসন্ধিকালের সাথে এই যে সম্পর্কে সেনিয়ে একটি প্রচলিত ধারনা ছিল। কিন্তু এখন আমাদের প্রাপ্ত উপাত্ত তা প্রমাণ করছে।”

বিশ্বব্যাপী বয়ঃসন্ধি শুরুর সময়কাল এগিয়ে আসছে।যুক্তরাজ্যে গত এক দশক আগে যখন ছেলে মেয়েদের বয়ঃসন্ধিকাল শুরু হতো, এখন তার থেকে এক মাস মতো আগে তা শুরু হচ্ছে।সেখানে মেয়েদের বয়ঃসন্ধিকাল শুরুর গড় বয়স ১১ বছর। আর ছেলেদের তা ১২ বছর।উন্নত স্বাস্থ্য ও পুষ্টিকর খাবারের সাথে এর সম্পর্ক রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।কিন্তু বয়ঃসন্ধিকাল আগে পরে শুরু হওয়ার সাথে শরীরের অধিক ওজন বা স্থূলতারও সম্পর্ক রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

২০১৫ সালে করা এক গবেষণায় দেখা গেছে বয়ঃসন্ধিকাল আগে বা পরে শুরু হওয়ার সাথে ডায়াবেটিস, স্থূলতা, হৃদরোগের সম্পর্ক রয়েছে। নারীদের মেনোপজ আগে হওয়ার সাথেও স্থূলতার সম্পর্ক পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *