Home / ফিটনেস / এক মাসে ৫ কিলো ওজন কমাতে ব্রেকফাস্টে খেতে হবে এই খাবারগুলি

এক মাসে ৫ কিলো ওজন কমাতে ব্রেকফাস্টে খেতে হবে এই খাবারগুলি

সারা দিনে আমরা যে যে সময় খাবার খাই ব্রেকফাস্ট তার মধ্য়ে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ। সেই কারণেই তো চিকিৎসকেরা ব্রেকফাস্ট মিস করতে মানা করেন। তাহলে এখন প্রশ্ন প্রাতরাশে কেমন ধরনের খাবার খেলে তা শরীরের জন্য় ভালো? পুষ্টিকর খাবারের কোনও অভাব নেই। কিন্তু এই প্রবন্ধে এমন একটি খাবার নিয়ে আলোচনা করা হবে, যা সকালে খেলে শরীর ভালো হওয়ার পাশাপাশি ওজনও কমবে। শুধু তাই নয় এই খাবারটি শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিনগুলিকে বের করে নানা রোগ থেকে আমাদের দূরে থাকতে সাহায্য় করবে এবং পেট পরিষ্কার রাখবে। গত কয়েক বছরে নানা কারণে ব্য়াকটেরিয়াল এবং ভাইরাল ইনফেরশনের প্রকোপ খুব বৃদ্ধি পয়েছে। এই খাবারটি এক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাহলে বুঝতেই পারছেন নানা গুণ সম্পন্ন এই খাবারটি এক সঙ্গে অনেক কাজে লাগবে। তাই আর সময় নষ্ট না করে এক্ষুনি পড়ে ফেলুন এই প্রবন্ধিটি। কারণ শুধু ওজন কমালেই তো চলবে না, সেই সঙ্গে সার্বিকভাবে শরীরকেও ভালো রাখতে হবে তো!



উপকরণ: ১. ওটমিল ২. ১ কাপ অর্গেনিক কেফির ৩. ১ চামচ কোকো পাউডার ৪. ১ চামচ গুঁড়ো ফ্লেক্স বীজ ৫. প্লাম।

বানানোর পদ্ধতি:
একটা বাটিতে পরিমাণ মতো প্লাম ফল দিয়ে তাতে ১০০ এম এল গরম জল ঢালুন। তারপর বাটিটা ঢেকে দিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন। এবার আরেকটি বাটি নিয়ে তাতে ওটমিল, কেফির, কোকা এবং ফ্লেক্স বীজ নিন। এক সঙ্গে সবকটি উপকরণ ভালো করে মেশান। যখন দেখবেন উপকরণগুলি ভালো করে মিশে গেছে, তখন প্লামসগুলি নিয়ে টুকরো টুকরো করে কেটে বাকি উপকরণগুলির সেঙ্গে মিশিয়ে একটা ব্লেন্ডারে ফেলুন এবং একটা মিশ্রন বানিয়ে নিন। প্রসঙ্গত, এই মিশ্রনটি রাতে শুতে যাওয়ার আগে বানাবেন আর সকালে খাবেন। এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক এই খাবারে যে যে উপকরণগুলি মেশানো হয়েছে তাদের উপকারিতা সম্পর্কে।



১. ওটমিল: ওজন কমানোর পাশাপাশি ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে এবং হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমাতে ওটমিলের কোনও বিকল্প নেই। শুধু তাই নয়, শরীর থেকে সব রকমের বিষাক্ত উপৈাদানকে বার করে দিতেও এই খাবারটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। ২. কেফির: এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় নিউট্রিয়েন্টস এবং প্রোবায়েটিক, যা হজম ক্ষমতাকে বাড়ায় এবং গাটের স্বাস্থ্য় ভাল রাখে।



৩. কোকো পাউডার: শরীরে বাজে কোলেস্টেরলের মাত্রা স্বাভাবিক রাখার পাশাপাশি ব্লাড ক্লট এবং উচ্চ রক্তচাপ কমাতে এই খাবারটির কোনও বিকল্প নেই। ৪. ফ্লেক্স বীজ: এতে রয়েছে ওমেগা ত্রি ফ্য়াটি অ্যাসিড, যা হার্টকে ভালো রাখতে সাহায্য় করে।



৫. প্লাম: এই ফলটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম, ফসফরাস, ম্য়াগনেশিয়াম, ক্য়ালসিয়াম, আয়রন এবং জিঙ্ক। তাছাড়া এটিতে ক্য়ালোরির মাত্রা খুব কম থাকার কারণে ওজন কমাতে প্লাম দারুন কাজে আসে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *