Home / ফিটনেস / থুতুনির নিচের ও গালের মেদ কমান মাত্র এই ৫টি ব্যায়াম করে!

থুতুনির নিচের ও গালের মেদ কমান মাত্র এই ৫টি ব্যায়াম করে!

আপনার কি আপনার পাউট করা সেলফির বারোটা বাজাচ্ছে?মনের দুঃখে তাই বলে ফোলা গাল আরো ফুলিয়ে বসে থাকলে তো আর আপনার সমস্যার সমাধান হবেনা|আসলে আমাদের অনেকেরই দেহে চর্বি জমার সাথে সাথে গালেও চর্বি জমতে থাকে,ফলে ডাবল চিন এর সমস্যা দেখা দেয় যা আজকালকার টোনড শেপ ফিগারের যুগে একেবারেই কাম্য নয়|তাই ঠিক কিভাবে মাত্র ১ মাসের মধ্যেই আপনি আপনার গালের মাংস একেবারে ঝরিয়ে ফেলতে পারেন তার সন্ধান পাবেন আজকের লেখায়।

আপনি রোগা হওয়ার জন্য তো কত কিছু করছেন যেমন ডায়েট, জিম ইত্যাদি। ঠিক সেরকমই কতগুলি খুব সহজ ব্যায়াম আছে যা আপনার ফোলা গালকে নিমেষেই আপনার ইচ্ছে অনুযায়ী চুপসে দিতে পারবে এবং আপনার জ- লাইন কে প্রপার শেপে নিয়ে আসবে| তাহলে চটপট দেখে নিন ব্যায়ামগুলি।

১.দা কিস পদ্ধতি
সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে সামনের সিলিং এর দিকে তাকান। এবার আপনার ঠোঁট দুটিকে চুম্বনের ভঙ্গিমায় নিয়ে আসুন। ১০ সেকেন্ড একই ভাবে থাকুন। এরপর ঠোঁট দুটি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে আসুন। এটি ১৫ বার একই ভাবে দিনে ২ বার করে করলে গালের অতিরিক্ত মাংস একেবারে কমে যাবে।

২.নেক রোল পদ্ধতি
প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়ান।আপনার থুঁতনিটি কে বুকের কাছে নামিয়ে আনুন। আপনার ঘাড় টি ধীরে ধীরে ডান দিকে ঘোরান। ১০ পর্যন্ত গুনে আবার আপনার ঘাড় স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসুন। একই ভাবে আপনার ঘাড় বাঁ দিকে ঘোরান। প্রক্রিয়াটি ৩০ সেকেন্ড ধরে করুন।দিনে অন্তত ২ বার এই ব্যায়াম করুন।

৩.রেসিস্টেন্স পদ্ধতি
প্রথমে আপনার হাত দুটি মুঠো করে চোয়ালের নিচে রাখুন। এবার একই সাথে আপনার চোয়ালটি নিচের দিকে ঠেলুন এবং হাত দিয়ে চোয়াল টি ওপরের দিকে ঠেলতে থাকুন। এইভাবে একই সঙ্গে ওপরের ও নিচের দিক থেকে চাপ বাড়াতে থাকুন। যখন চোয়ালের পেশী সবথেকে বেশি চাপ অনুভব করবে তখন সেই অবস্থায় ১০ সেকেন্ড অপেক্ষা করার পর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসুন। এই ভাবে পর পর ৫ থেকে ৭ বার করুন দিনে ২ বার করে।

৪.জজাট পদ্ধতি
প্রথমে আপনার মাথা সামান্য পেছনের দিকে বেকিয়ে নিন। এবার ঘরের ছাদের দিকে সোজা তাকান। আপনার নিচের চোয়াল টিকে যতটা সম্ভব সামনের ঠিক ঠেলুন। এই ভাবে ১০ পর্যন্ত গুনুন। এরপর চোয়ালটিকে স্বাভাবিক অবস্থায় নিয়ে আসুন এবং মাথা সোজা করুন। ১০ বার একই ভাবে ব্যায়ামটি করুন।

৫.স্টিক ইট আউট পদ্ধতি
প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়ান। এরপর সামনের দিকে তাকিয়ে বড় করে হা করুন। আপনার জিভকে যতটা সম্ভব বাইরের দিকে বের করার চেষ্টা করুন। ১০ পর্য্যন্ত গুনে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসুন।দিনে ২ বার করে পরপর ১০ বার ব্যায়ামটি করুন।

এছাড়াও বসার সময় ঘাড় ও পিঠ সোজা করে বসুন। প্রচুর পরিমানে জল খান। জাঙ্ক ফুড,দুধ মিশ্রিত চা ও কফি কম করে খান আর আমার বলে দেওয়া ব্যায়ামগুলি ঠিক ঠিক পদ্ধতিতে শুরু করে দিন| কিছুদিনের মধ্যেই আপনার পাউট ওয়ালা সেলফি কিন্তু আপনার ব্যয়াম করার ফলাফল জানিয়ে দেবে আপনাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *