Home / ত্বকের যত্ন / উজ্জ্বল ত্বক পেতে নিয়মিত কাঁচা হলুদের ফেস প্যাক ব্যবহার করুন!

উজ্জ্বল ত্বক পেতে নিয়মিত কাঁচা হলুদের ফেস প্যাক ব্যবহার করুন!

বাজারের হাজার একটা প্রোডাক্ট ব্যবহার করেও স্কিনের ন্যাচারাল জেল্লা ফিরিয়ে আনা যায় না। কিন্তু যদি বারোমাস ত্বকের জেল্লা ধরে রাখতে চান, তাহলে অবশ্যই ব্যবহার করুন কাঁচা হলুদ। এটি নিয়মিত ব্যবহারে এটি ত্বকে নিয়ে আসে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা। দু’টি টিপস আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। ১০০% ভালো ফল পাবেন। তবে কাঁচা হলুদে অ্যালারজি থাকলে এটি ব্যবহার করবেন না।

কাঁচা হলুদঃ রোজ সকালে ঘুম থেকে উঠে, মুখ ধুয়ে একটি কাঁচা হলুদ গুঁড়ের সাথে খান। চাইলে শুধু কাঁচা হলুদও খেতে পারেন। এটি আপনার শরীরের রোগ জীবাণু দূর করার সাথে সাথে, স্কিনকে ভেতর থেকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করবে। যা কোন ক্রিম করে উঠতে পারবে না।

কাঁচা হলুদ ও নিমপাতাঃ কাঁচা হলুদের ফেসিয়াল করুন রোজ বা সপ্তাহে তিনদিন। কাঁচা হলুদ ও নিমপাতা একসাথে পেস্ট করে রোজ স্নানের একঘণ্টা আগে মাখুন। মুখে ও চাইলে সারা গায়ে এই প্যাকটি মাখতে পারেন। এই প্যাকটি স্কিনের ময়লা দূর করে সহজেই। আর স্কিনকে গ্লো করে নিমেষে।

শুষ্ক ত্বকের জন্য হলুদ এবং বেসনের প্যাকঃ ২ চা চামচ বেসন, ১ চা চামচ চন্দনের গুঁড়ো, ১ চা চামচ দুধের সর এবং এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি মুখ এবং ঘাড়ে লাগান। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। আপনার ত্বক যদি অনেক শুষ্ক হয়, তবে কয়েক ফোঁটা বাদাম তেল ব্যবহার করতে পারেন।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য টক দই এবং হলুদের প্যাকঃ ২ চা চামচ টক দই, ১ চা চামচ মুলতানি মাটি, গোলাপ জল এবং এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। আপনি চাইলে এতে চন্দনেরগুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন। এই প্যাকটি ভালো করে মুখ এবং ঘাড়ে লাগান। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

সংবেদনশীল ত্বকের জন্য অ্যালো ভেরা এবং হলুদের প্যাকঃ ২ চা চামচ মুলতানি মাটি, ১ চা চামচ টক দই, ১/২ চা চামচ অ্যালোভেরা জেল, এবং এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি ভালো করে মুখে লাগান। ২০ মিনিট পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সংবেদনশীল ত্বকে প্যাক ব্যবহারে অনেক বেশি সচেতন থাকতে হয়। অ্যালোভেরা এবং হলুদের প্যাক ত্বক এর যেকোন প্রকার দাগ দূর করে ব্রণের প্রবণতা কমিয়ে থাকে।

মুখের ত্বকের মতই গলা এবং পিঠের যত্ন নিনঃ অনেকেই মনে করেন কেবল মুখের ত্বক এর যত্ন মানেই ত্বক এর যত্ন। বাস্তবিক আপনার সম্পূর্ণ শরীর জুড়েই ত্বকের অবস্থান আপনাকে শরীরের সব জায়গায় সমান যত্ন নিতে হবে। বিশেষ করে আপনি যখন বাইরে যান, তখন আপনার ঘাড় কিংবা গলায় সূর্যের আলোর প্রভাব অনেক বেশী পড়ে, একই সাথে এই জায়গায় ময়লাও অনেক বেশী হয়। সুতরাং এসব যায়গায় ঠিকভাবে যত্ন নিতে হবে। গরমের দিনে বাইরে থেকে এসেই ঘাড়ে একটি টাওয়েল ঠাণ্ডা পানিতে ভিজিয়ে লাগান – এতে আপনার ঘাড় এবং মাথা উভয়ই শীতল থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *