Home / ফিটনেস / খালি পেটে খান এই ঘরোয়া ওষুধ ১ মাসে কমবে ৬ কেজি ওজন!

খালি পেটে খান এই ঘরোয়া ওষুধ ১ মাসে কমবে ৬ কেজি ওজন!

বর্তমানে শরীরের অতিরিক্ত ওজন ও বাড়তি মেদ নিয়ে আপনি চিন্তিত? অতিরিক্ত ওজন স্বাস্থ্যের জন্য একেবারেই ভালো নয়, সেটা জানা আছে আপনার? নিয়মিত শরীরচর্চা ও ডায়েট লিস্টের পরিবর্তন করেও দেখেছেন! কিন্তু কিছুতেই কাজ হচ্ছে না। এখন উপায়?

বিশেষজ্ঞদের মতে, বাড়তি ওজনের কারণে পিঠে ব্যথা, হজমের সমস্যা, ক্লান্তি, ডিপ্রেশন, হার্টের রোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ একাধিক রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা মারাত্মকভাবে বেড়ে যায়। তাই এখন থেকেই সাবধান হয়ে যাওয়া উচিত, নইলে বিপদে পড়তে হবে! তবে এ নিয়ে এতো চিন্তার কিছু নেই। বিশেষজ্ঞরা বাড়তি ওজন কমাতে খালি পেটে একটি ঘরোয়া ওষুধ খাওয়ার কথা বলেছেন। যা টানা এক মাস খেলে আপনার ওজন ৬ কেজি পর্যন্ত কমতে পারে!

এই ঘরোয়া ওষুধটি শরীরে জমে থাকা চর্বি গলিয়ে দেয়ার পাশপাশি হজম ক্ষমতার উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাও রাখে। কারণ ওজন কমানোর ক্ষেত্রে হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটা একান্ত প্রয়োজন। খাবার যত ভালো হজম হবে, তত শরীরে চর্বি জমার আশংকা কমবে।

ঘরোয়া ওষুধটির প্রস্তুত প্রণালী-
উপকরণ: তিন চা চামুচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার ও এক চা চামুচ লেবুর রস।

প্রস্তুত প্রণালী: একটি কাপে উপরের দুই উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এটি প্রতিদিন সকালে খালি পেটে সেবন করবেন। এরপর দু’একদিনের মধ্যে বুঝতে পারবেন আপনার ওজন কমতে শুরু করেছে। প্রসঙ্গত, ওজন কমানোর সময় ভুলেও ফ্যাট এবং মিষ্টি জাতীয় খাবার খাবেন না। তাহলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

যদি ঘুমনোর আগে একান্তই কিছু খেতে হয় তাহলে হালকা কিছু খান: তাড়াতাড়ি ডিনার সেরে নেওয়ার একটা বিপত্তি হল, রাত্রে ঘুমোতে যাওয়ার সময় খিদে পেয়ে যেতে পারে। কিন্তু সেক্ষেত্রে খিদে মেটানোর জন্য চিপস বা চানাচুরের প্যাকেট খুলে বসবেন না যেন। খান হালকা কোনও খাবার। সবচেয়ে ভাল হয়, যদি ফ্রুট স্যালাড খেতে পারেন।

রাতে তাড়াতাড়ি খেয়ে নিন: ‘সেল মেটাবলিজম’ নামের একটি জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র জানাচ্ছে, রাত ৮টার সময় যদি খেয়ে নেওয়া যায় রাতের খাওয়া তাহলে শরীরে উদ্বৃত্ত ক্যালোরির পরিমাণ কমে। এবং তার পরিণামে কমে যায় চর্বিও।

ঘুমের সময়টা বাড়িয়ে নিন: প্রচলিত ধারণা হল, ঘুমোলে শরীরে চর্বি বাড়ে‌। কিন্তু গবেষকরা বলছেন, এটা ভুল ধারণা। বরং বেশি ঘুমালে খাওয়ার সময়টা কমে যায়। তার সঙ্গে তাল রেখে কমে যায় শরীরে সামগ্রিক খাদ্যগ্রহণের পরিমাণ। এতে শরীরের অতিরিক্ত চর্বিও হ্রাস পায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *