Home / ফিটনেস / জিমে না গিয়ে শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে চান? জেনে নিন

জিমে না গিয়ে শরীরের বাড়তি ওজন কমাতে চান? জেনে নিন

এক জাতীয় গণমাধ্যমের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে যে, জাপানে একটি মেডিক্যাল কনফারেন্স হয়েছিল যা থেকে প্রমাণ হয়েছে, চুয়িংগাম চিবোতে চিবোতে হাঁটাচলা বা দৌড়োদৌড়ি করলে দ্রুত দেহের ক্যালরি বার্ন হয়।

জাপানের সেই মেডিক্যাল কনফারেন্স থেকে আরও জানা গেছে যে, ২১-৬৯ বছর বয়সী মোট ৪৬ জন নারী ও পুরুষের মধ্যে বডি মাস ইনডেক্সের হিসেবে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে দেখা গিয়েছে, যাঁরা চুয়িংগাম চিবিয়ে ওজন কমানোর চেষ্টা করেছেন, তাঁদের ওজন অপেক্ষাকৃত অনেকটাই দ্রুত কমেছে।

ক্রমাগত দাঁত ও চোয়ালের কাজ হওয়ার ফলে গালে জমে থাকা মেদ খুব দ্রুতই কমে যায়। ৪০ বছরের বেশি বয়সী পুরুষদের চুয়িংগাম চিবোতে চিবোতে হাঁটলে বা ব্যায়াম করলে দেহের ওজনও অনেকটাই কমে।

সর্বক্ষণ চুয়িংগাম চিবনোর ফলে ক্রমাগত পেশির নড়াচড়া হয়, ফলে হৃদযন্ত্রের রক্ত চলাচল প্রক্রিয়া খুব দ্রুত হয় এবং দেহের বিপাকীয় ক্রিয়া আরও দ্রুত হয়। এটিই ওজন কমাতে সাহায্য করে তবে শুধু ওজন কমাতেই নয় চুয়িংগাম গাম চিবনোর ফলে মানসিক চাপও অনেকটা কমে এবং দাঁতের ক্ষয় প্রক্রিয়াও ধীরে হয়।

আরো পরুন, এক মিনিটের এই খাবারে ওজন কমবে দ্রুত!সকাল বেলা গরম গরম নাশতা খেতে আমরা সবাই ভালোবাসি, কিন্তু কম সময়ে স্বাস্থ্যকর নাশতা কি তৈরি করা যায়? রেডিমেড কিনে খেলেও সেই একই পরোটা, ব্রেড, কর্ণফ্লেক্স এসবই খাওয়া হয়। এতে পেট হয়তো ভরে ঠিকই, কিন্তু স্বাস্থ্যরক্ষা হয় না।

ওজন কমিয়ে ছিপছিপে হবার কথা ভাবছেন? তাহলে জেনে নিন আজকের রেসিপি। মাত্র এক মিনিটেই রোজ সকালে তৈরি করে নিতে পারবেন গরম গরম এই নাশতা। এতে নেই কোন চিনি বা তেল, পেট ও মন দুটোই ভরবে সহজে কোন বাড়তি ক্যালোরি ছাড়াই। আর স্বাদ? যারা মোটেও ওটস খেতে পারেন না বা পছন্দ করেন না, তাদের কাছেও ভালো লাগবে নিশ্চিত।

যা লাগবেঃ
আপনার পছন্দের ওটস ৩ টেবিল চামচ দুধ হাফ কাপ (স্কিম মিল্ক নিলে আরও ভালো) লবণ এক চিমটি। দারুচিনি গুঁড়ো এক চিমটি মধু ১ চামচ (যাদের ডায়াবেটিস আছে তারা বাদ দিতে পারেন) চম্পা কলা একটি স্ট্রবেরি, আপেল, আঙুর, ব্লু বেরি ইত্যাদি নিজের পছন্দের ফল এক মুঠো (ফলের ক্ষেত্রে টক-মিষ্টি স্বাদ মিলিয়ে ফল নিতে হবে। ওজন কমাতে চাইলে আম, পাকা পেঁপে এগুলো একটু এড়িয়ে যাওয়া ভালো। তবে এক মুঠো পরিমাণ খেলেও ক্ষতি নেই। ডায়াবেটিস থেকে থাকলে যেসব ফল খাওয়ার অনুমতি আছে, সেখান থেকেই বেছে নিন)

যা করবেন
– দুধের সঙ্গে লবণ এবং দারুচিনি গুঁড়ো দারুণ ফ্লেভার তৈরি করে। এছাড়াও সকাল সকাল দারুচিনি গুঁড়ো , মধু, ওটস ইত্যাদি উপাদান ওজন কমাতে অত্যন্ত সহায়ক। -একটি বাটিতে দুধ এবং ওটস নিন। লবণ ও দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে দিন। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে মাইক্রোওয়েভে ৩০ সেকেণ্ড গরম করুন। -ওভেন বন্ধ হলে আরও ৩০ সেকেণ্ড দিন। একবারে ১ মিনিট দেবেন না, এতে দুধ উথলে পড়ে যেতে পারে। -বের করে ভালো করে নেড়ে দিন। ওপরে পছন্দের ফল দিয়ে দিন। সবার শেষে দিন মধু।

ব্যস, তৈরি আপনার ঝটপট নাশতা। উপভোগ করুন গরম গরম। লবণ, দারুচিনি, মধু আর সঙ্গে টক মিষ্টি স্বাদের ফল… সব মিলিয়ে স্বাস্থ্যকর তো বটেই, সুস্বাদুও এই খাবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *