Home / সাজঘর / মেকআপ তুলতে ঘরেই তৈরি করুন ক্লিঞ্জার ৪টি

মেকআপ তুলতে ঘরেই তৈরি করুন ক্লিঞ্জার ৪টি

ওপরের লেখা দেখে নিশ্চয়ই ভাবছেন,অতো রাতে বাড়ি ফিরে আবার বাড়িতে ক্লিঞ্জার কে বানাবে। জানি রাতে পার্টি থেকে বাড়ি ফিরে, তখন হাতের সামনে যা পান সেটা দিয়েই মুখ পরিষ্কার করে শুয়ে পড়তে মন চায়। কিন্তু এটা কি ভেবেছেন বাজারের যেকোনো ক্লিঞ্জার কতটা ক্ষতির দিকে ঠেলে দিচ্ছে আপনার স্কিনকে। এতেই তো ওপেন পোরস,ব্রণর সমস্যা আরও বেড়ে যায়। তাই বাড়িতেই ক্লিঞ্জার বানিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। এতে মুখ পরিষ্কার থাকে ভেতর থেকে। মানে খরচাও কম আবার বদলে ক্লিয়ার, গ্লোয়িং,হেলদি স্কিন। এবার আপনি বলুন কোনটা বেশী ভালো। তাই দেখে নিন কিভাবে বানাবেন বাড়িতে ক্লিঞ্জার।

মধু
মধু যেমন একদিকে খুব ভালো ব্লিচ হিসাবে কাজ করে,তেমনই মেকআপ তোলার ক্ষেত্রে ঘরোয়া ক্লিঞ্জার হিসাবেও দারুণ কাজ করে।খুব সুন্দরভাবে মেকআপ তুলে দেয়।সাথে স্কিনকে ময়েশ্চারাইজডও করে।স্কিনে দেয় একটা ইনস্ট্যান্ট গ্লো।

উপকরণ
১ চামচ মধু ও ১চামচ বেকিং সোডা।

পদ্ধতি
সাধারণভাবে রোজের মুখ পরিষ্কার করার জন্য,জাস্ট একটু মধু নিয়ে মুখে ঘষলেই মুখ পরিষ্কার থাকবে।আর মেকআপ তোলার ক্ষেত্রে মধুর সাথে মিশিয়ে নিন একটু বেকিং সোডা।এবার এই মিশ্রণটা একটা কাপড়ে করে নিয়ে মেকআপ তুলুন এটার সাহায্যে।চোখের কাজল থেকে,মুখের মেকআপ সবই উঠে আসবে এতে।সাথে দেখবেন স্কিন কতটা হেলদি লাগছে দেখতে!

অলিভ তেল
অলিভ তেল যেমন সুন্দর মেকআপ তোলে,তেমনই সুন্দরভাবে স্কিনকে ময়েশ্চারাইজড করে।তাই বাজারের ক্লিঞ্জারগুলোতে মেকআপ তোলার পর মুখ যেভাবে শুকিয়ে যায়,এতে তা একদমই হবে না।বরং স্কিন থাকবে ময়েশ্চারাইজড ও ক্লিন।

উপকরণ
২ থেকে ৩ চামচ অলিভ তেল ও একটু জল।

পদ্ধতি
অলিভ তেলের সাথে একটু জল মেশান।এবার এটা তুলোয় করে নিয়ে মেকআপ তুলুন।এটা বেশী করে বানিয়ে রেখে দিতেই পারেন ফ্রিজে।বাড়ি ফিরে জাস্ট তুলোয় করে একটু নিয়ে মেকআপ তুলে নেবেন।মুখের মেকআপের সাথে আই মেকআপও সুন্দর উঠে আসবে।মেকআপ করার পর আপনার স্কিন যতটা শুকিয়ে গিয়েছিল,এটা দিয়ে মেকআপ তোলার পর দেখবেন মুখ কেমন কোমল নরম হয়ে গেছে।এটা আপনার মুখের হারিয়ে যাওয়া ময়েশ্চারকে আবার ফিরিয়ে আনবে।

দুধ
দুধ তো বাড়িতে রোজই থাকে।দুধ বহু প্রাচীনকাল থেকেই রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে সেটাও নিশ্চয়ই জানা।দুধে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড স্কিনকে তো ফর্সা করতে সাহায্য করেই,সেই সঙ্গে স্কিনকে ময়েশ্চারাইজডও করে।কিন্তু জানেন কি একটু দুধই হতে পারে আপনার রোজের মেকআপ ক্লিঞ্জার?বর্তমান বিউটি এক্সপার্টরা তো তাই বলছেন। দুধের মত ভালো মেকআপ ক্লিঞ্জার নাকি খুব কমই আছে।

উপকরণ
২ থেকে ৩চামচ দুধ ও হাফ চামচ অলিভ তেল।

পদ্ধতি
দুধের সাথে অলিভ তেল মিশিয়ে নিন।এবার এই মিশ্রণ মুখে ১ থেকে ২মিনিট লাগিয়ে রাখুন।তারপর তুলোয় করে ঘষে ঘষে মেকআপ তুলে নিন।আই মেকআপও আস্তে আস্তে এটা দিয়ে তুলে নিন।দেখবেন মেকআপ কেমন সহজে উঠে গেল,কিন্তু স্কিন একটুও ড্রাই হল না।

ময়েশ্চারাইজার
মেকআপ তোলার জন্য হাতের কাছে কিচ্ছু পাচ্ছেন না?তাহলে আর কি! কাজে লাগান আপনার ঘরে থাকা ময়েশ্চারাইজারকে।কখন ট্রাই করেননি নিশ্চয়ই?এবার হাতের কাছে কিছু না পেলে এটাই ট্রাই করবেন।এতে মেকআপও যেমন সুন্দরভাবে উঠে যাবে,তেমনই স্কিন থাকবে ময়েশ্চারাইজড।আলাদা করে আর মেকআপ তোলার পর ময়েশ্চারাইজার মাখার কোন দরকার পড়বে না।

উপকরণ
জাস্ট একটু ময়েশ্চারাইজার।

পদ্ধতি
ময়েশ্চারাইজার একটু বেশী করে নিন।পুরো মুখে ভালো করে লাগান।কয়েক সেকেন্ড অপেক্ষা করুন।তারপর তুলো বা সুতির কাপড় জাস্ট হালকা করে ভিজিয়ে নিন।এবার এটা দিয়ে ঘষে ঘষে ময়েশ্চারাইজার মুখ থেকে তুলে নিন।এতে ময়েশ্চারাইজারের সাথে মেকআপও দেখবেন কেমন সুন্দর ভাবে উঠে আসবে।ভিজে কাপড় দিয়ে মুখ মোছার পর,মুখ শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিন।ব্যাস মুখ একদম পরিষ্কার এবং ময়েশ্চারাইজড।

শসার স্কিন টোনার
তাহলে দেখলেন তো বাড়ির কয়েকটা সহজ উপাদান কত সুন্দর মেকআপ তুলতে পারে।ব্যাস এবার বাজারের ক্ষতিকর প্রোডাক্ট কেন ব্যবহার করবেন,আর কেনই বা ক্লিঞ্জার কিনে পয়সা নষ্ট করবেন যখন বাড়িতেই আছে এত ভালো ক্লিঞ্জার,যেটা কোনো ক্ষতি ছাড়াই স্কিন ক্লিয়ার করবে এবং হেলদিও করে তুলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *