Home / ত্বকের যত্ন / গায়ের রঙ ফর্সা করতে তৈরী করে ফেলুন দারুণ একটি “উইন্টার ফেয়ারনেস ক্রিম”

গায়ের রঙ ফর্সা করতে তৈরী করে ফেলুন দারুণ একটি “উইন্টার ফেয়ারনেস ক্রিম”

শীতকালে ত্বকে চলে আসে কালচে একটি ভাব। বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় শীতকালে অনেক কালো দেখায়। এটি আবহাওয়ার কারণে হয়ে থাকে। সেকারণে শীতকালে ত্বকের জন্য দরকার বিশেষ যত্নের এবং বিশেষ ত্বকের প্রসাধনী। বাজারে শুধুমাত্র শীতকালে ব্যবহারের জন্য নানা ফেয়ারনেস ক্রিম পাওয়া যায়। কিন্তু এইসকল কেমিক্যাল সমৃদ্ধ ক্রিমের রয়েছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তাই যদি প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি ক্রিম ব্যবহার করা যায় তাহলে সবচাইতে বেশি উপকার পাওয়া সম্ভব। রান্নাঘরের টুকিটাকিতেই খুব সহজে ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক ‘শীতের ফেয়ারনেস ক্রিম’। আজকে চলুন দেখে নিই এই ক্রিম তৈরির বিশেষ পদ্ধতি।

যা যা লাগবে- ৮ টি কাঠবাদাম (আলমন্ড বাদাম), ১/৪ চা চামচ হলুদগুঁড়ো, ১ চা চামচ দই, ১ চা চামচ মধু, আধা চা চামচ লেবুর রস।

পদ্ধতি- কাঠবাদাম সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে বেটে নিন মিহি করে। এতে একটি একটি করে বাকি উপকরণ মেশান। খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন যাতে খুব মসৃণ একটি পেস্টের মতো হয়। ব্যস, হয়ে গেলো আপনার শীতের ফেয়ারনেস ক্রিম।

ব্যবহার বিধি- এই ক্রিমটি রাতে ব্যবহারের জন্য। তাই রাতে ঘুমুতে যাওয়ার আগে ব্যবহার করবেন। মুখ ভালো করে ধুয়ে এবং মেকআপ পরিষ্কার করে নিয়ে ক্রিম লাগাবেন। পুরো মুখে আঙুল দিয়ে ২-৩ মিনিট ক্রিমটি দিয়ে ম্যাসেজ করে নিন ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে। সকালে ঘুম থেকে উঠে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন এবং গোলাপজল দিন মুখে। এরপর যেকোনো ময়েসচারাইজার ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও সুন্দর। এই ক্রিমটি ১ সপ্তাহ ফ্রিজে রেখে সংরক্ষণ করা যাবে।

আরো পড়ুন, ফর্সা ত্বক পেতে সকাল বেলা করুন এই ছোট্র কাজ
কেনা চায় দাগহীন ফর্সা ত্বক। ত্বকের রঙ ফর্সা করতে চাইলে রোজ সকালে ছোট্ট একটি রুটিন মেনে চলুন। মাত্র ৭ দিনে লক্ষ্য করতে পারবেন পার্থক্য, ত্বকের রঙটা হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত। ১ মাস টানা মেনে চললে দারুণ উজ্জ্বল আর ফর্সা হয়ে উঠবে আপনার রঙ।

ঘুম থেকে উঠেই খালি পেটে এক গ্লাস উষ্ণ পানি খাবেন। চাইলে সামান্য মধু মিশিয়েও খেতে পারেন। এক গ্লাস উষ্ণ পানি কেবল ত্বক নয়, আপনার বাকি দেহকেও সতেজ করে তুলবে। এবং আপনার পরবর্তী রূপচর্চার জন্য ত্বককে প্রস্তুত করবে। মুখে ভাপ নিন। একটি হাঁড়িতে গরম পানি নিয়ে সেই বাষ্প মুখে লাগান কয়েক মিনিট। খুব বেশী কাছ থেকে বাষ্প লাগাবেন না। খুব বেশী উত্তাপও যেন না লাগে। মুখে ভাপ দেয়া হলে পরিষ্কার তুলো দিয়ে মুখ মুছে নিন। ফেসমাস্ক তৈরি করার জন্য একটি টমেটো নিন। মাঝ থেকে কেটে দুভাগ করে ভেতরের পাল্প সবটুকু বের করে নিন। এর সাথে দিন আধা চামচ লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ কাঁচা দুধ, সামান্য মধু। সম্ভব হলে ১ টেবিল চামচ শসার রসও দিন। লেবু ও টমেটো ন্যাচারাল ব্লিচ হিসাবে কাজ করবে, দুধ যোগাবে ময়েশ্চার, মধু দূর করবে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ আর শসা কমাবে অতিরিক্ত তেল।

এই ফেস মাস্কটি মুখে ও গলায়-হাতে কিংবা অন্যান্য জায়গায় মাখুন। ২০ থেকে ৩০ মিনিট রাখুন। রেখে ধুয়ে ফেলুন ঠান্ডা পানি দিয়ে। মুখ মুছে হালকা ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন। বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন থাকলে সানস্ক্রিন ক্রিম মাখুন। ত্বকের রঙ ফর্সা করতে রোজ সকালে এক গ্লাস গাজরের জুস খাওয়ার অভ্যাস করুন।

সূত্র: প্রিয় লাইফ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *