Home / অন্যান্য / সহবাসের আগে যে খাবার খেলে সারা রাতেও এনার্জি শেষ হবে না!

সহবাসের আগে যে খাবার খেলে সারা রাতেও এনার্জি শেষ হবে না!

শরীরের বিভিন্ন পুষ্টি পূরণে আমরা প্রতিদিনই অনেক ধরনের খাবার খেয়ে থাকি কিন্তু সবাই জানি কি কোন ধরনের খাবার আমাদের মিলনের বাড়াতে সক্ষম? সাধারণত খাবারে ভিটামিন এবং মিনারেলের ভারসাম্য ঠিক থাকলে শরীরে এন্ড্রোক্রাইন সিস্টেম সক্রিয় থাকে।

আর তা আপনার শরীরে এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরনের তৈরি হওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। এস্ট্রোজেন এবং টেস্টোস্টেরন সেক্সের ইচ্ছা এবং পারফরমেন্সের জন্য জরুরি। আপনি যৌন মিলনের মুডে আছেন কিনা তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করে আপনার খাদ্য। আসুন জেনে নিই এমন কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্য সম্পর্কে যা আপনার শরীরে সহবাস পাওয়ার বাড়ায় বহুগুণ।

দুধ :বেশি পরিমাণ প্রাণিজ-ফ্যাট আছে এ ধরনের প্রাকৃতিক খাদ্য আপনার যৌনজীবনের উন্নতি ঘটায়। যেমন, খাঁটি দুধ, দুধের সর, মাখন ইত্যাদি। বেশিরভাগ মানুষই ফ্যাট জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে চায়। কিন্তু আপনি যদি শরীরে সহবাস হরমোন তৈরি হওয়ার পরিমাণ বাড়াতে চান তাহলে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট জাতীয় খাবারের দরকার। তবে সগুলিকে হতে হবে প্রাকৃতিক এবং স্যাচুরেটেড ফ্যাট।

ঝিনুক :আপনার যৌনজীবন আনন্দময় করে তুলতে ঝিনুক খাদ্য হিসেবে খুবই কার্যকরী। ঝিনুকে খুব বেশি পরিমাণে জিঙ্ক থাকে। জিঙ্ক শুক্রাণুর সংখ্যা বৃদ্ধি করে এবং লিবিডো বা যৌন-ইচ্ছা বাড়ায়। ঝিনুক কাঁচা বা রান্না করে যে অবস্থাতেই খাওয়া হোক, ঝিনুক যৌনজীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে

যে অভ্যাস মস্তিষ্কে সংকুচিত করে,
কাজের ধরন বা অভ্যাসগত কারণে অনেকেই দিনের বেশিরভাগ সময় বসে কাটান। এতে একদিকে যেমন কায়িক পরিশ্রম কম হয়, অন্যদিকে মারাত্মক শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। এভাবে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকায় মস্তিষ্কের যে অংশে স্মৃতি জমা থাকে, সেটি সংকুচিত হয়ে পড়ে। বিজ্ঞানবিষয়ক ওয়েবসাইট লাইভ সায়েন্সের এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া এ গবেষণাটি করে।
গবেষণায় বলা হয়, যাদের নিষ্ক্রিয় থাকার অভ্যাস রয়েছে (সারা দিন চেয়ারে বসে থাকা) তাদের মস্তিষ্কের স্মৃতি সংকুচিত হয়ে আসে। মধ্য ও তদূর্ধ্ব বয়সীদের ক্ষেত্রে এ সমস্যাটা বেশি দেখা যায়। এর আগে এক গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, দীর্ঘ সময় বসে থাকার অভ্যাস হৃদরোগ, ডায়াবেটিস ও অকালমৃত্যুর ঝুঁকি বাড়ায়। নতুন এই গবেষণায় দেখা যায়, মস্তিষ্কের ওপর শারীরিক নিষ্ক্রিয়তার প্রভাব।

মস্তিষ্কের মিডিয়াল টেমপোরাল লোব অংশটি নতুন স্মৃতি তৈরির কাজে যুক্ত। এই অংশটি সংকুচিত হলে প্রাপ্তবয়স্কদের বোধশক্তির অবনতি ও স্মৃতিবিভ্রমের মতো সমস্যা দেখা যায়। গবেষণায় ৪৫ থেকে ৭৫ বছরের ৩৫ জন ব্যক্তির শারীরিক সক্রিয়তার মাত্রা পরিমাপ করা হয়। প্রতিদিন তারা কত ঘণ্টা সময় বসে থাকেন, তার গড় মান নেওয়া হয়। পরে তাদের মস্তিষ্ক স্ক্যান করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *