Home / দাম্পত্য জীবন / শারীরিক মিলনের সময় নারীর যেসব শব্দ পুরুষদের পাগল করে দেয় জেনে নিন!

শারীরিক মিলনের সময় নারীর যেসব শব্দ পুরুষদের পাগল করে দেয় জেনে নিন!

নারী-পুরুষের শারীরিক মিলন এমন একটি বিষয় যা মানুষকে আনন্দ দেয়। শুধু আনন্দই নয়, বিশেষজ্ঞরা বলেন, এতে মানসিক প্রশান্তিও আসে। একজন নারী ও একজন পুরুষ যখন শারীরিক সম্পর্কে আবদ্ধ হন তখন বিভিন্ন ধরনের আবেদনময়ী শব্দ করেন। এই শব্দ একে অপরের মধ্যে আরও বেশি আবেগের সৃষ্টি করে।

সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, শারীরিক সম্পর্কের সময় এমন মধুর শব্দ শুধু নারীরাই করতে পারেন। পুরুষরা যে শব্দ করেন তা নারীদের কাছে ‘কর্কশ’ মনে হয়। নারীরা পুরুষের এমন শব্দে খুব বেশি আলোড়িতও হন না। তবে নারীদের শব্দ পুরুষদের পাগল করে তোলে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মনোবিজ্ঞানী সুশান হাগ বলছেন, ‘সেক্সুয়াল সাউন্ড হচ্ছে এমন শব্দ যা জোরে শোনা যায় না, নিঃশ্বাসের সঙ্গে প্রবাহিত হয়। নারীদের এমন শব্দ পুরুষকে আন্দোলিত করে।’ তিনি আরও বলেন, ‘নারী ও পুরুষ তাদের মধ্যে শারীরিক মিলনের সময় অনেকসময় অবচেতনভাবেই শব্দ করেন। এটি তাদের আরও প্রশান্তি দেয়। তবে এমন শব্দ করতে পুরুষরা বেশি দক্ষ নন। এক্ষেত্রে নারীরাই বেশি পারদর্শী।’

আরো পড়ুন,
শারীরিক মিলন কমাবে ব্যথাঃ মাথাব্যথা কিংবা শরীরের অন্যত্র ব্যথা হলে অনেকেই না বুঝে পেইনকিলার সেবন করে থাকেন। এতে অহেতুক ওষুধ নেওয়াতে শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ঝুঁকিও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। শরীরের ব্যথা কমাতে বরং যৌন সম্পর্কই শ্রেয় বলে মন্তব্য করেছেন আমেরিকার স্ত্রী-রোগ বিশেষজ্ঞ লরেন স্ট্রেইশার।

সম্প্রতি এক টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্ট্রেইশার জানান, অনেক সময় দৈহিক মিলনের ফলে মাথাব্যথা কমে যেতে পারে। এমনকি জয়েন্টের ব্যথাও কমে যায়। তার মতে, মিলনের সময় পুরুষ-নারী উভয়ের শরীর থেকে এন্ড্রোফিন নিঃসৃত হয়। শরীর থেকে বেশি মাত্রায় এন্ড্রোফিন বেরিয়ে যাওয়ার কারণেই, দ্রুত মাথাব্যাথা থেকে রেহাই পাওয়া যায়। শুধু মাথাই নয় শরীরের বিভিন্ন অংশের ব্যথাও যৌন মিলনে দূর হয় বলে দাবি করেন তিনি।

স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দেন, শরীরে বেশ কিছুদিন ধরে কোনো ব্যথা দেখা দিলে পেইন কিলার না খেয়ে নিয়মিত শারীরিক মিলনের অভ্যাস গড়ে তোলাই শ্রেয়। লরেনের বলেন, ‘দাম্পত্য উত্তেজনায়, সাময়িক হলেও মনোযোগ বিক্ষিপ্ত হয়। এই কারণে, ব্যথার বোধ খানিকটা দূর হয়।’ তবে প্রচণ্ড মাথা ব্যথার ক্ষেত্রে এই মতবাদ কার্যকরী নয় বলে আরও জানিয়েছেন এই বিশেষজ্ঞ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *