Home / দাম্পত্য জীবন / স্বামীকে সর্বোচ্চ যৌন সুখ দেওয়ার সহজ কিছু উপায় শিখে নিন!

স্বামীকে সর্বোচ্চ যৌন সুখ দেওয়ার সহজ কিছু উপায় শিখে নিন!

অধিকাংশ পুরুষের অভিযোগ তাদের প্রেমিকা/স্ত্রীরা তাদের সন্তুষ্ট করতে পারে না। শারীরিক মিলন চলাকালীন স্রেফ বিছানায় শুয়ে থাকে। কিন্তু প্রত্যেক পুরুষের চরম ইচ্ছা থাকে স্ত্রীর কাছ থেকে আদর সোহাগ পাবার। কোনও কনট্রিবিউশন নেই। যা করার পুরুষকেই করে নিতে হয়। এদিকে প্রেমিকা/স্ত্রীরাও দিশেহারা। তবে কিছু সহজ বিষয় মনে রাখলে শারীরিক মিলনে স্বামীকে সর্বোচ্চ সুখ দেওয়া নারীর জন্য খুব সহজ।

কী করে যে প্রেমিক/স্বামীর মন জয় করবে, ভেবে পায় না। এই সমস্যার সমাধান করতে কিছু কিছু জিনিস মেনে চলতে হবে প্রেমিকা/স্ত্রীদের। কী কী, তা জেনে নিন –

১. রঙিন অন্তর্বাস পড়ুন: কোনও জিনিসের ঢাকনা যদি আকর্ষণীয় হয়, সেই জিনিসটির প্রতি আমাদের লোভ বেড়ে যায়। সে চকোলেটই হোক বা জামার প্যাকেট। তৎক্ষণাৎ সেই জিনিসটি আমরা কিনে ফেলতে চাই। অন্তর্বাসের ব্যাপারটিও তাই। প্রেমিক/স্ত্রীর সামনে নিজেকে পুরোপুরি মেলে ধরার আগে কয়েক জোড়া আকর্ষণীয় অন্তর্বাস রাখুন স্টকে। দোকানে গিয়ে স্যাটিন বা লেস দেওয়া সুন্দর কয়েকটি অন্তর্বাস কিনে ফেলুন। ম্যাটিরিয়ালের সঙ্গে ভ্যারাইটিতেও রকমফের চাই। জি-স্ট্রিং, থং, বিকিনির মতো অন্তর্বাস বেছে নিন। সেই অন্তর্বাসই প্রেমিক/স্বামীকে আপনার দিকে চুম্বকের মতো টেনে নিয়ে আসবে।

২. স্ট্রিপটিজ়: নারীর বস্ত্রত্যাগের চেয়ে আর কোনও কিছুতে পুরুষকে উত্তেজিত করা যায় না। তাই সেই পন্থাকেই বেছে নিন। প্রেমিক/স্বামীকে চমকে দিতে চাইলে খুব সম্মোহনী অন্তর্বাস পরে তার সামনে এসে দাঁড়ান। ধীরে ধীরে বস্ত্রত্যাগ করতে শুরু করুন। আপনার এই উদ্যোগে প্রেমিক/স্বামীর ঘোর লেগে যাবে। বাকিটা আর বলছি না।

৩. উত্তেজকপূর্ণ জায়গায় কামড়: প্রেমিক/স্বামীই এতকাল আপনার সুখস্বাচ্ছন্দ্যের দিকে খেয়াল রেখে এসেছেন। এবার আপনার পালা। প্রেমিক/স্বামীর শরীরের কোন জায়গাগুলো উত্তেজনার হটস্পট, তা জেনে নিতে হবে আপনাকে। ক্রিয়া চলাকালীন সেসব জায়গাতেই ফোকাস বজায় রাখুন।

৩. চুমু: প্রাণের পুরুষকে বশ করার আরও একটা রাস্তা হল চুমু। যে নারী ভালো কিসার, পুরুষ হৃদয় তার জয়জয়কার। কেননা, পুরুষ মনে করে ভালো চুমু খাওয়াটা হল হটনেসের প্রতীক। যতবেশি হট, ততবেশি হিট। যতবেশি হিট, ততবেশি ওয়েট।

৪. মাঝরাতে তলব, ও গো ওঠো না: এই “ওঠো না” বাথরুমে যাওয়ার সময় ভয় পেয়ে “ওঠো না” নয়। এই ওঠো না সেই ওঠো না, যার জন্য অনেকগুলি রজনী না ঘুমিয়ে কাটিয়েছে আপনার প্রেমিক/স্বামী। এই ওঠো না উত্তাপের ওঠো না। মোদ্দা কথা হল, প্রেমিক/স্বামীকে গভীর রাতে ঘুম থেকে তুলে যৌনতা ভরা প্রেমে আলিঙ্গন করা। এতে প্রাণের পুরুষটি বুঝবেন আপনার মিলিত হওয়ার স্বাদ তার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়। হলফ করে বলতে পারি, ঘুম-ফুম শিকেয় তুলে তিনিও জেগে উঠবেন নতুন করে।

৫. দুষ্টু ছবির দুষ্টুমি: প্রত্যেক পুরুষই কখনও না কখনও নীল ছবি দেখেছে। নীল ছবির নায়িকাকে মনে মনে কামনা করেছে। প্রাণের পুরুষের সঙ্গে সেই ছবি দেখতে পারেন। একসঙ্গে অন্তরঙ্গ হওয়ার সময় মনের মধ্যে যে বিপুল তরঙ্গ খেলে যাবে, তার সবটাই প্রতিফলিত হবে পরতে পরতে। মিলনসুখ হয়ে উঠবে মধুর থেকে মধুরতম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *