Home / ত্বকের যত্ন / বগলের কালো দাগ স্থায়ী ভাবে দূর করার তিনটি সহজ উপায়!

বগলের কালো দাগ স্থায়ী ভাবে দূর করার তিনটি সহজ উপায়!

এই গরমে স্লিভলেশ বা হাতকাটা টপ, কুর্তি পরার ইচ্ছে থাকলেও পরতে লজ্জা লাগছে? কিছু তো একটা করতে হবে! চিন্তা করতে বলছি না। বলছি এর থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ ঘরোয়া উপায়। আজকের তিনটি টিপস আপনাদের বগলের কালো দাগ শুধু সরাবে না স্থায়ী ভাবে দূর করবে। চলুন তাহলে পড়ে নেওয়া যাক কি কি উপায়ের সাহায্যে বগলের কালো দাগ স্থায়ী ভাবে দূর করা যেতে পারে।

লেবু, হলুদ ও ময়দার প্যাক –

শেভিং, ডিওডোরেন্টের ব্যবহার, ত্বকের সাথে ত্বকের ঘর্ষণ এসব কারনে বগল কালো হয়ে যায়। যা দেখতে খুবই বিচ্ছিরি লাগে। তাই সপ্তাহে তিন দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করুন। বগলের কালো দাগ দূর হবে পাশাপাশি বগলের খসখসে ভাব কমে যাবে।

উপকরনঃ পাতিলেবু একটা, ২ চা চামচ হলুদের পেস্ট, ১ চা চামচ ময়দা।

পদ্ধতিঃ একটি কাঁচের বাটিতে পাতিলেবুর রস, হলুদের পেস্ট ও ময়দা ভালো করে মেশান। খেয়াল রাখবেন মিশ্রণটি যেন ভালো ভাবে মিশে যায়। এবার উভয় হাতের বগলের নীচে ভালো করে প্যাকটি লাগান। হালকা করে ৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এতে ত্বকের ময়লা দূর হবে। ৩০ মিনিট মত প্যাকটি লাগিয়ে রেখে এবার একটি বাটিতে হালকা গরমজল নিয়ে তুলো দিয়ে প্যাকটি পরিষ্কার করুন। ভালো ভাবে প্যাকটি তোলা হয়ে গেলে ঠাণ্ডা জলে এবার দুয়ে নিন।

চন্দনের গুঁড়ো ও গোলাপজল –

চন্দন ও গোলাপজলের প্যাক ত্বকের আদ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। সাথে ত্বকের কালচে ভাব দূর করে। তাই এই প্যাকটি খুবই কার্যকরী। সপ্তাহে দুই দিন এই প্যাকটি অবশ্যই ব্যবহার করুন। দু সপ্তাহের মধ্যে বগলে হওয়া কালচে দাগ দূর হবে ও ত্বক দেখতে সুন্দর লাগবে।

উপকরনঃ চন্দন গুঁড়ো ও গোলাপজল।

পদ্ধতিঃ একটি কাঁচের বাটিতে ৪ চা চামচ মত চন্দনের গুঁড়ো নিন। সাথে ২ চা চামচ গোলাপজল মেশান। ভালো ফল পেটে বাড়িতে বানিয়ে নিন গোলাপজল। এবার মিশ্রণটি ভালো ভাবে মিশিয়ে নিন। এবার উভয় হাতের বগলের নীচে ভালো করে প্যাকটি লাগান। হালকা করে ৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এতে ত্বকের ময়লা দূর হবে। ৩০ মিনিট মত প্যাকটি লাগিয়ে রেখে এবার একটি বাটিতে হালকা গরমজল নিয়ে তুলো দিয়ে প্যাকটি পরিষ্কার করুন। ভালো ভাবে প্যাকটি তোলা হয়ে গেলে ঠাণ্ডা জলে এবার দুয়ে নিন।

চিনি ও পাতিলেবুর প্যাক –

চিনি ও লেবু –
চিনি ও পাতিলেবুর প্যাক ত্বকের কালো ভাব দূর করার পাশাপাশি ত্বককে ট্যান হতে দেয়। সপ্তাহে ৪ দিন এই প্যাকটি অবশ্যই ব্যবহার করুন। দু সপ্তাহের মধ্যে বগলে হওয়া কালচে দাগ দূর হবে ও ত্বক দেখতে সুন্দর লাগবে।

উপকরনঃ চিনি ও পাতিলেবুর রস।

পদ্ধতিঃ একটি কাঁচের বাটিতে ৩ থেকে ৪ চা চামচ চিনি নিন সাথে একটি পাতিলেবুর রস মেশান। খেয়াল রাখবেন চিনি যেন লেবুর সাথে মেশার পরও একটু দানা দানা থাকে। এক্ষেত্রে একটু মোটা দানার চিনি ব্যবহার করা উচিত। এবার উভয় হাতের বগলের নীচে ভালো করে প্যাকটি লাগান। হালকা করে ১৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এতে ত্বকের ময়লা দূর হবে। ১৫ মিনিট মত প্যাকটি লাগিয়ে রেখে ঠাণ্ডা জলে এবার দুয়ে নিন।

উপরে বলা তিনটি উপায়ের যেকোনো একটি যদি নিয়ম করে এক মাস ব্যবহার করেন ভালো ফলাফল পাবেন এটুকু বলতে পারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *