Home / ফিটনেস / স্তনকে সঠিক শেপে ধরে রাখার ৫টি সহজ উপায়!

স্তনকে সঠিক শেপে ধরে রাখার ৫টি সহজ উপায়!

সঠিক মাপের ব্রা না পরা, অতিরিক্ত ওজন এসব নানা কারণ, এছাড়াও বয়স বাড়ার সাথে সাথে স্তনের স্বাভাবিক আকৃতি নষ্ট হয়ে যায়। আর স্তনের আকৃতি ঠিক থাকলে যতটা সুন্দর লাগে, স্তনের আকৃতি নষ্ট হয়ে গেলে ঠিক ততোটাই বেমানান লাগে। সে আপনি যতই সুন্দর পোশাক পরুন না কেন। তাই বয়স কম থাকতে থাকতেই স্তনের আকৃতি ঠিক রাখার চেষ্টা করুন। আজ রইল স্তনের আকৃতি ঠিক রাখার ৫টি উপায়।

১. ডিক্লাইন পুশআপ ব্যায়াম
এই ব্যায়ামটির জন্য প্রথমে উল্টো হয়ে শুয়ে পড়ুন। এরপর আপনার হাত দুটো বুকের পাশে রাখুন। আর পা একটু উঁচুতে রাখুন। মানে পা বসার ছোট টুল, বা অল্প উঁচু সোফা বা বেঞ্চ এরকম অল্প উঁচু জায়গায় পা দুটো রাখুন। এবার হাতের ওপর শরীরের ওজনটা দিয়ে শরীরকে তুলুন আস্তে আস্তে। শরীরকে ওপরে তুলে আবার নীচে নামান। এইভাবে কয়েকবার করুন। প্রথমদিকে ৫ থেকে ৬বার করুন। তারপর বাড়াতে থাকুন।

২. ডাম্বেল পুল ওভার
এর জন্য বাড়িতে বেঞ্চ থাকলে খুব ভালো। প্রথমে বেঞ্চের ওপর শুয়ে পড়ুন। তারপর হাতে একটা ডাম্বেল নিন। দু’হাত দিয়ে ডাম্বেল ধরুন। এবার ডাম্বেল সহ হাত, প্রথমে ওপরদিকে তুলুন। বুকের সোজাসুজি নিয়ে যান। এবার হাত মাথার দিকে নিয়ে যান। মাথার পেছন দিকে যতটা পারেন নিয়ে যান। আর মেঝেতে শুয়ে করলে, হাত মাথার পেছনে রাখুন। আবার হাত বুকের ওপরে সোজাসুজি নিয়ে আসুন। আবার মাথার পিছনে নিয়ে আসুন। এইভাবে ১০ থেকে ১৫ বার করুন। তারপর ধীরে ধীরে সংখ্যা বাড়াতে পারেন।

৩. চেস্ট ফ্লাই
এর জন্য প্রথমে মাটিতে সোজা হয়ে শুয়ে পড়ুন। পা একদম সোজা রাখবেন না। উঁচু করে রাখবেন। এবার দু’হাতে দুটো ডাম্বেল রাখুন। প্রথমে হাত বুকের সোজাসুজি নিয়ে যান উঁচু করে। ১০ সেকেন্ড মত উঁচু করে রাখুন। আবার হাত বুকের দু’পাশে নিয়ে যান। দু’পাশে রাখুন। আবার হাত ওপরে তুলুন। বুকের সোজাসুজি উঁচুতে রাখুন কয়েক সেকেন্ড। আবার বুকের দু’পাশে নিয়ে যান। এভাবে এইভাবে এটা ১৫ মিনিট মত করুন। ডাম্বেল বাজারে কিনতে পেয়ে যাবেন।

৪. ওয়াল পুশআপ
এটা খুব সহজ একটা ব্যায়াম। এর জন্য শোয়ার দরকার নেই। দেওয়ালের সামনে দাঁড়ান। দেওয়ালের ওপর হাত দিন। পা যেন দেওয়াল থেকে একটু দূরে থাকে। এবার হাত সোজা রাখুন প্রথমে। এরপর হাতের ওপর শরীরকে একবার দেওয়াল থেকে দূরে নিয়ে যান। আবার শরীরকে দেওয়ালের কাছে আনুন। এটা সম্পূর্ণ হাতের ওপর ভর দিয়ে হবে। শরীর যখন দেওয়ালের কাছে আনবেন, তখন হাত বেন্ড হবে। কিন্তু পা সোজা থাকবে। পা একটুও বেন্ড হবেনা। এভাবে প্রথম দিকে ১৫ বার করুন। তারপর সংখ্যা বাড়ান ধীরে ধীরে। এমন ভাবে করবেন বুকের মাসলে চাপ পড়ে।

৫. ম্যাসাজ
ব্যায়ামগুলো ছাড়াও ম্যাসাজ হল খুব ভালো উপায় স্তনের আকার ঠিক রাখতে। যেকোনো তেল দিয়ে ম্যাসাজ করতে পারেন। যেমন নারকেল তেল, অলিভ তেল ইত্যাদি দিয়ে ম্যাসাজ করতে পারেন। এছাড়া স্তন ঝুলে যাওয়া আটকাতে ব্যবহার করুন বরফ কুচি। একটা কাপড়ে বরফের কুচি নিন। কাপড় বেঁধে, স্তনের চারপাশে গোল করে ম্যাসাজ করুন। এতে বুকের টিস্যুর রক্ত সঞ্চালন উন্নত হয়। শেপ ঠিক থাকে। এছাড়াও স্তনের আকৃতি বৃদ্ধির জন্য মেথির তেল খুব ভালো। নারকেল তেলের মধ্যে মেথি ফুটিয়ে সেটা ব্যবহার করতে পারেন।

তবে শুধু তেল হলেই হবে না সঠিক ভাবে ম্যাসাজ করাও দরকার। প্রথমে স্তনের চারপাশে গোল করে ম্যাসাজ করবেন। তারপর স্তনের নীচে একটা হাত রাখবেন এবং ওপরে একটা হাত রাখবেন। এবার হাত স্তনের সামনের দিকে নিয়ে যাবেন। এইভাবে কয়েকবার করুন। তারপর স্তনবৃন্তের ওপরে ও নীচে দুটো আঙুল রাখুন। আঙুল দিয়ে স্তনবৃন্তকে সামনের দিকে নিয়ে যান। এইভাবে রোজ নাহলে সপ্তাহে তিন থেকে চারদিন ম্যাসাজ করুন।

ওপরের এই ব্যায়ামগুলো রোজ সম্ভব না হলে সপ্তাহে অন্তত তিনদিন করুন। সাথে রাতে শোওয়ার আগে, ওপরের পদ্ধতি মেনে ১০ থেকে ১৫ মিনিট একটু ম্যাসাজ করে নিন। ব্যাস স্তনের আকার দেখবেন কেমন সুন্দর থাকে।

তথ্যসুত্রঃ dusbus.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *