Home / ত্বকের যত্ন / চোখের নিচে কালি হওয়ার কারন ও দূর করার ৯ সহজ ঘরোয়া উপায়!

চোখের নিচে কালি হওয়ার কারন ও দূর করার ৯ সহজ ঘরোয়া উপায়!

চোখের নিচে কালি নিয়ে দুশ্চিন্তার শেষ নেই। এই চোখের কালি দূর করতে কত কিছুই না করলেন। একটু কমলেও আবার আগের মতো হয়ে যায়। তাহলে উপায়? পরামর্শ দিয়েছেন মিডফোর্ড হাসপাতালের চক্ষু বিভাগের প্রধান অধ্যাপক শামসুল হক।

চোখের নিচে কালি পরার কারণঃ

১. ঘুমের অসুবিধাঃ কম ঘুম রক্ত সঞ্চালনকে ধীরগতির করে। এটি চোখের নিচে কালো দাগ বা ডার্ক সার্কেল তৈরির একটি কারণ। এটি কেবল চোখের নিচে কালো দাগ তৈরি করে না, ত্বকের আরো সমস্যা করে। ২. চোখের মেকআপঃ এটি আরেকটি বিষয় চোখে ডার্ক সার্কেল তৈরি করার। চোখের মেকআপ ঠিকমতো না পরিষ্কার করলে কালো দাগ পড়তে পারে।

৩. পানিশূন্যতাঃ বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়, পানিস্বল্পতা ও চোখের নিচে কালো দাগের যোগ রয়েছে। ৪. খুব বেশি চোখ ঘষাঃ এটি আরেকটি প্রচলিত অভ্যাস চোখের নিচে কালো দাগ পড়ার। কারণ, এই অভ্যাস ত্বককে ক্ষতিগ্রস্ত করে। চোখ ঘষার কারণে ত্বকে প্রদাহ হয়ে কালো দাগ তৈরি হয়।

৫. গরম পানি দিয়ে মুখ ধোয়াঃ চোখের চারপাশের ত্বক একটু স্পর্শকাতর ও পাতলা। গরম পানি দিয়ে চোখ ধোয়া পিগমেন্টেশন তৈরি করতে পারে। এতে চোখের নিচে কালো দাগ হয়। ৬. ভালো পণ্য ব্যবহার না করাঃ এ ছাড়া ভালো পণ্য না ব্যবহার করার কারণেও অনেক সময় চোখে কালো দাগ পড়তে পারে। তাই চোখে ব্যবহারের জন্য কোনো পণ্য কিনলে সেটি যেন ভালো মানের হয়, সেদিকে খেয়াল রাখুন।

সমস্যা দূর করতে
১. পরিমিত ঘুমানোর অভ্যাস। অন্তত সাত-আট ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। ২. ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায় এমন ওষুধ পরিহার করতে হবে। ৩. পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করুন। তবে রাতে ঘুমানোর আগে বেশি পানি খাওয়া অনুচিত। ৪. চোখ কচলানো একেবারে বাদ দিন। চোখে ঠান্ডা সেঁক দিতে পারেন।

৫. মাথার নিচে অতিরিক্ত বালিশ ব্যবহার করতে পারেন। এটি অনেক সময় চোখের ফোলাভাব কমাতে সাহায্য করে। ৬. প্রচুর সবুজ মৌসুমি শাকসবজি আর ফলমূল খান। ৭. ধূমপান থেকে বিরত থাকুন। ৮. দুশ্চিন্তা আর মানসিক চাপ থেকে দূরে থাকুন। ৯. রোদে বাইরে বের হলে রোদচশমা ব্যবহার করতে পারেন।

ঘরে বসে সহজেই আপনি প্রাকৃতিক উপায়ে চোখের নিচের কালি দূর করতে পারেন।

১. পাতলা করে কাটা শসা চোখে দিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট চোখ বন্ধ রাখুন। ২. ব্যবহূত টি ব্যাগ ফ্রিজে রেখে সকালে ১০ থেকে ১৫ মিনিট চোখে রাখুন। ৩. পাতলা করে কাটা আলুর টুকরা ফ্রিজে রেখে চোখে রাখুন। ৪. আলু ও শসা সমপরিমাণে মিশিয়ে চোখের চারপাশে ক্রিম হিসেবে লাগাতে পারেন। ৫. টমেটোর রস অনেক ক্ষেত্রে উপকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *